সাম্প্রতিক কার্যক্রম :
র‌্যাবের অভিযানে মাদারীপুর থেকে ০১ জন জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ✱ র‌্যাবের অভিযানে চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানাধীন ফতেয়াবাদ এলাকায় অভিযান চালিয়ে ০১ টি ওয়ানশুটারগান, ০৫ রাউন্ড খালি খোসা, ১৪ টি রামদা, ০১ টি চাইনিজ কুড়ালসহ বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার এবং ০২ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ✱ ফেসবুক পেইজে নেশা জাতীয় দ্রব্য (গাঁজা) এর বিভিন্ন ধরণের ছবি পোষ্টের মাধ্যমে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি বা সুনাম ক্ষুন্ন করার দায়ে রাজধানীর তেজগাঁও থানাধীন পশ্চিম নাখাল পাড়া এলাকা হতে ০১ (এক) অপরাধীকে গ্রেফতার। ✱ র‌্যাবের অভিযানে এসএমপির সদর থানা এলাকায় ভেজাল বিরোধী অভিযানে ০৫ টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা প্রদান। ✱ র‌্যাবের অভিযানে সিপিসি-১ (পটুয়াখালী ক্যাম্প) কর্তৃক পটুয়াখালীর গলাচিপা হতে বহুল আলোচিত মাদক ব্যবসায়ী আটক। ✱ র‌্যাবের অভিযানে ১৪৫৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ ০১ জন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। ✱ র‌্যাবের অভিযানে ময়মনসিংহ কর্তৃক মুক্তাগাছা থানাধীন বানারপাড় এলাকায় পিকআপে লুকিয়ে পরিবহনকালে ৩৮৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার। ০২ মাদক ব্যবসায়ী আটক। ✱ র‌্যাবের অভিযানে কুমিল্লা দাউদকান্দি হতে পিকআপ ভ্যানে সবজির আড়ালে গাঁজা পাচারকালে গ্রেফতার ০১। ৩৫ কেজি গাঁজা উদ্ধার ও পিকআপ জব্দ। ✱ র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর দারুস সালাম থানাধীন মিরপুর বেড়িবাঁধ ও গাবতলি এলাকা থেকে ৩৫ কেজি গাঁজা সহ প্রাইভেট কার ও মাহেন্দ্র আটক। ০২ মাদক কারবরিকে গ্রেফতার ✱ র‌্যাবের অভিযানে নাটোর জেলার সদর থানাধীন বনবেলঘরিয়া এলাকা থেকে ৫৮ কেজি গাঁজা উদ্ধারসহ ০৩ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ✱

ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড ফরেনসিক উইং

র‌্যাব ফোর্সেস এর ইনভেস্টিগেশন এন্ড ফরেনসিক উইং এর কার্যক্রম তদন্ত শাখা ও ফরেনসিক ল্যাব নিয়ে পরিচালিত হয়।

তদন্ত শাখাঃ

 এই উইং এর সাংগঠনিক কাঠামোয় সার্বিক কর্মকান্ড পরিচালকের নেতৃত্বে একজন সিনিয়র সহকারী পরিচালকের তত্ত্বাবধানে তদন্ত শাখা সহকারী পরিচালক পদমর্যাদার কর্মকর্তা কর্তৃক স্পর্শকাতর ও জনগুরুত্ব সম্পন্ন মামলা তদন্ত ও তদারকী ইনভেস্টিগেশন এন্ড ফরেনসিক উইং কে আরো গতিশীল করেছে। র‌্যাব কর্তৃক এ পর্যন্ত ১৬৫৭টি মামলার তদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে এবং সাজার হার ৫২%। র‌্যাব কর্তৃক দায়েরকৃত মামলার যাবতীয় তথ্যাদি ডিজিটালি সংরক্ষণের জন্য ÔÔRAB Case Management Software’’ নামক ডাটাবেজ প্রস্তুত করা হয়েছে। সফট্ওয়্যারটির মাধ্যমে র‌্যাবের সকল ব্যাটালিয়ন কর্তৃক দায়েরকৃত মামলার তদন্ত ও বিচার সংক্রান্ত সকল ধরনের তথ্য সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

  • ব্যাটালিয়ন কর্তৃক তদন্তের জন্য প্রস্তাবিত মামলাগুলোর তদন্তের অনুমতির জন্য পুলিশ সদর দপ্তর ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে সমন্বয় সাধন করা এবং র‌্যাব কর্তৃক দায়েরকৃত মামলাগুলোর এজাহার ও জব্দতালিকা সংরক্ষণ।
  • তদন্তাধীন মামলার রহস্য উদ্ঘাটন ও গুরুত্বপূর্ণ অপারেশনের তদন্তকাজে বিভিন্ন সহায়তা পরামর্শ দেয়া।
  • চাঞ্চল্যকর মামলাগুলোর তদন্তে ত্রুটিবিচ্যুতি দূর করার লক্ষ্যে তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মামলার তদারককারী কর্মকর্তাগণকে মনিটরিং সেলের মিটিংয়ের মাধ্যমে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়ে তদন্ত কার্যক্রমে গতিশীলতা আনয়ন করা।
  • র‌্যাব ডাটাবেজে সংরক্ষিত র‌্যাব বাদী ও র‌্যাব কর্তৃক তদন্তাধীন/বিচারাধীন মামলার বিবরণ ও ফলাফল থেকে পরিসংখ্যান তৈরি করে র‌্যাব সদর দপ্তরসহ পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন সভায় উপস্থাপন করা।

 

ফরেনসিক শাখাঃ

২৬ মার্চ ২০০৪ তারিখে র‌্যাব ফোর্সেস গঠনের পর হতে একটি আধুনিক ফরেনসিক ল্যাব প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়। র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তরের ইনভেস্টিগেশন এন্ড ফরেনসিক উইং-এ ফরেনসিক ল্যাবে স্থাপনের কার্যক্রম ২০০৭ সাল থেকে শুরু হয়। এর ধারাবাহিকতায় ২০১১ সালে র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তরের ইনভেস্টিগেশন এন্ড ফরেনসিক উইং-এর অধীন একটি ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাব প্রতিষ্ঠিত হয় এবং মূল্যবান ও অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করে নমুনা পরীক্ষণ কার্যক্রম শুরু হয়। রাসায়নিক বিশেষজ্ঞের তত্ত্বাবধানে ফরেনসিক ল্যাবের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ০৫ জুন ২০১১ তারিখের স্মারক নং-মল/মিস/২৩/২০১১(ফৌজঃ)-২৬১(৬৫০) প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবের বিশেষজ্ঞ মতামত আদালতে সাক্ষ্য হিসেবে গণ্য হচ্ছে। আধুনিকীকরণের অংশ হিসেবে এ পর্যন্ত এই ল্যাবে অত্যাধুনিক ICPMS, GCMS, HPLC,HD-XRF, Question Document Analyser, UV-VIS, Portable Forgery Documents Analyzer, Crime Scene Imaging System, Portable Raman Anylazer, Latent Fingerprint Capture Instrument,  FTIR With ATR, Scanning Electron Microscope, FT Near-IR Spectrometer, Water Quality Analyzer, স্থাপন করা হয়েছে।

  • র‌্যাবের ব্যাটালিয়নসমূহ ছাড়াও বাংলাদেশ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট, জেলা দায়রা আদালত, মোবাইল কোর্ট, বিজিবি, কোস্টগার্ড, কর্তৃক উদ্ধারকৃত/জব্দকৃত মাদকদ্রব্য/আলামত/সন্দিগ্ধ নমুনা যথা-হেরোইন, মরফিন, কোডিন, গাঁজা, বিভিন্ন প্রকার ড্রিংস, জুস অথবা পানীয়তে মাদকদ্রব্যের উপস্থিতি, বিস্ফোরক/ প্রিকারসর দ্রব্যাদি পরীক্ষা করে বিশেষজ্ঞ মতামত প্রেরণের মাধ্যমে করে আইন প্রয়োগে প্রতিনিয়ত সহায়তা করে যাচ্ছে ফরেনসিক ল্যাব।
  • ফরেনসিক ল্যাবের তত্ত্বাবধানে র‌্যাবের ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তরে এবং ক্যাম্পসমূহে ÒField Testing KitÓ সরবরাহ করা হচ্ছে। যার মাধ্যমে র‌্যাব সদস্যরা তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে মাদকদ্রব্য পরীক্ষা করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ  করে যাচ্ছে।
  • ২০১১ থেকে ২০১৯ (নভেম্বর ২০১৯ মাস পর্যন্ত) সাল পর্যন্ত ফরেনসিক ল্যাব কর্তৃক ৩৫০০ টির অধিক নমুনা পরীক্ষাপূর্বক ফলাফল দেয়া হয়েছে। হ্যান্ডরাইটিং, ফটোগ্রাফি, ব্যালাস্টিক, DNA এবং মাইক্রোএনালাইসিস বিভাগ শুরু করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।