সাম্প্রতিক কার্যক্রম :
র‌্যাবের অভিযানে আইন-শৃংঙ্খলা বাহিনীর ভূয়া পরিচয়ে স্কয়ার ফার্মার ২ কোটি টাকা মূল্যের কাঁচামাল ডাকাতির ঘটনায় দুর্ধর্ষ ডাকাত দলের মূল হোতাসহ ০৩ সদস্যকে ঢাকা ও রাজশাহী হতে গ্রেফতার। ডাকাতির মালামাল উদ্ধার। ✱ র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর গুলশান ও বাড্ডা এলাকা হতে জাল শিক্ষা সনদ তৈরী চক্রের ০৪ জন অভিযুক্ত গ্রেফতার। ✱ র‌্যাবের অভিযানে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত কনস্টেবল শরীফ (৩৩) হত্যার লোমহর্ষক রহস্য উদঘাটন এবং হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত মূলহোতাসহ ০৩ জনকে গ্রেফতার\ হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা চাকু ও বাসের হুইল রেঞ্জ উদ্ধার এবং রক্তমাখা বাসটি জব্দ। ✱ র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হতে গোপনে দেশত্যাগের প্রাক্কালে ধৃত ০৪ জন অবৈধ অর্থ পাচারকারী নিকট হতে চাঞ্চল্যকর তথ্য উদঘাটন এবং বিদেশী পিস্তল, ম্যাগাজিন, গুলিসহ বিপুল পরিমান নগদ টাকা উদ্ধার। ✱ র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে ঢাকার আন্ডার ওয়াল্ডের শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের অন্যতম সহযোগী মাজহারুল ইসলাম @ শাকিল গ্রেফতার ✱ র‌্যাবের অভিযানে দেহের অভ্যন্তরে মাদক দ্রব্য বহনকারী ০৩ নারীসহ ০৮ মাদক ব্যবসায়ী আটক ॥ ১৫,০৮০ পিস ইয়াবা উদ্ধার। ✱ র‌্যাবের অভিযানে ঢাকা জেলার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন চুনকুটিয়া এলাকা হতে অস্ত্র ও র‌্যাবের পোশাকসহ ০২ জন ভুয়া র‌্যাব আটক ✱ র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হতে গোপনে দেশত্যাগের প্রাক্কালে ০৪ জন অবৈধ অর্থ পাচারকারী ও জাল টাকা সরবরাহকারী গ্রেফতার \ বিপুল পরিমান দেশী-বিদেশী মুদ্রাসহ জাল টাকা উদ্ধার। ✱ র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর আশুলিয়া থানাধীন কাঠগড়া পালোয়ানপাড়া এলাকায় চাঞ্চল্যকর পাঠাও রাইড চালককে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় জড়িত সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী দলের ০৩ জন গ্রেফতার এবং ভিকটিমের ব্যবহৃত মোবাইল উদ্ধার। ✱ র‌্যাবের অভিযানে নারায়ণঞ্জের সোনারগাঁ হতে কাভার্ড ভ্যানে ফেনসিডিল পাচারকালে ০৩ জন গ্রেফতার। ৪৭০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার ও কাভার্ড ভ্যান জব্দ। ✱

র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর গুলশান ও বাড্ডা এলাকা হতে জাল শিক্ষা সনদ তৈরী চক্রের ০৪ জন অভিযুক্ত গ্রেফতার।

প্রকাশের তারিখ : ১৫-০৩-২০২০


র‌্যাব-৩ গোয়েন্দা সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, ঢাকা মহানগরীর গুলশান ও বাড্ডা থানাধীন বারিধারা জেনারেল হাসপাতালের ৮ম তলায় প্রাইভেট স্ট্যাডি একাডেমী নামক প্রতিষ্ঠান এবং প্রগতি টাওয়ার (৯ম তলা), খ-২১৪/ই, মেরুল বাড্ডা, থানা-বাড্ডা, ডিএমপি, ঢাকার মালিক মোঃ জিয়াউর রহমান কোচিং বানিজ্যের আড়ালে সার্টিফিকেট জালিয়াতির খোলামেলা ব্যবসা করে আসছে এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যেকোন বছরের অনার্স, মাস্টার্স, ডিগ্রী পাশের সার্টিফিকেট, সকল বোর্ডের এসএসসি ও এইচএসসি পাশের সার্টিফিকেট উন্মক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেট এবং সকল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেট প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ২/৩ মাসের মধ্যে সরবরাহ করে থাকে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য র‌্যাব-৩ এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল ১৪/০৩/২০২০ তারিখ ১৭৪৫ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর গুলশান থানাথীন বারিধারা জেনারেল হাসপাতালের ৮ম তলায় প্রাইভেট স্ট্যাডি একাডেমী নামক প্রতিষ্ঠানে উপস্থিত হলে, র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আসামীগণ এদিক-সেদিক ছোটাছুটি করে পালানোর চেষ্টাকালে জাল শিক্ষা সনদ তৈরী চক্রের সদস্য ১। মোঃ আজিজুর রহমান (২৭), পিতা-মৃত আবু তালেব চৌধুরী, জেলা-গোপালগঞ্জ, ২। মোঃ রফিকুল ইসলাম (৩০), পিতা-মৃত বজলুর রহমান, জেলা-বরিশাল, ৩। মোঃ শরিফুল ইসলাম (১৮), পিতা-ওমর আলী, জেলা-ময়মনসিংহ এবং ৪। মোঃ হায়দার আলী (৩০), পিতা-মোঃ শামসুল হক, জেলা-কুমিল্লাদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। উক্ত আসামীদের নিকট হতে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএসসি সার্টিফিকেট ০১ টি, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের এইচএসসি সার্টিফিকেট ০১ টি, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কশীট ০৩ টি, প্রসংশাপত্র ০১ টি, প্রাইভেট স্ট্যাডি একডেমীতে ভর্তি ফরম প্যাড ০২ টি, বিভিন্ন সার্টিফিকেট প্রত্যাশী ব্যক্তিবর্গের তথ্যসম্বলিত রেজিষ্টার ০৩ টি, বিভিন্ন সার্টিফিকেট প্রত্যাশী ব্যক্তিবর্গের মোবাইল নম্বর সম্বলিত ডাইরি ০৪ টি, প্রাইভেট এক্সাম সেন্টার বিডি ভর্তির টাকার রশিদ বই ০১ টি, বিজ্ঞাপন সম্বলিত লিফলেট ৫০ টি, সীমকার্ডসহ মোবাইল ফোন ১৩ টি, পাসপোর্ট ০৫ টি, জিয়াউর রহমান নামীয় পরিচয়পত্র ০১ টি (যাতে রাজিয়া গ্রæপের চেয়ারম্যান লেখা আছে),  দুইটি কালো ক্লিপ বোর্ডে সংযুক্ত বিভিন্ন ব্যক্তির মুল সার্টিফিকেট এবং সার্টিফিকেট ফটোকপি, বিভিন্ন ব্যক্তির তথ্যসম্বলিত রেজিষ্টার ০১ টি,  বিভিন্ন ব্যক্তির তথ্যসম্বলিত ডাইরি ০২টি,  গøাজগো কমার্স কলেজে ভর্তির রশিদ বই ০১ টি, বিজ্ঞাপন সম্বলিত লিফলেট ১০০ টি, উক্ত প্রতিষ্ঠানের মালিক জিয়াউর রহমান নামীয় টিআইএন সার্টিফিকেট ০১ টি, এ্যাডুকেশন হেল্পলাইন লিমিটেড মানি রশিদ বই ০১ টি, এবং টার্গেটকৃত ব্যক্তিবর্গের সাথে কথোপকথন কৌশলপত্র ০১ টি উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, উপরোক্ত আসামীগণ একটি সংঘবদ্ধ জালজালিয়াত চক্র। দীর্ঘদিন যাবত কোচিং বানিজ্যের আড়ালে গ্রামের সহজ সরল সল্প শিক্ষিত ছাত্র/ছাত্রীদের টার্গেট করে তাদের সরলতার সুযোগ নিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে তদের বানোয়াট/জাল শিক্ষা সনদ প্রদান করে আসছে যা আসল সনদ বলে সরবরাহ করছে।
 

আরও সাম্প্রতিক কার্যক্রম