সাম্প্রতিক কার্যক্রম :
র‌্যাব-৩ এর অভিযানে ঢাকা মহানগরীর দারুসসালাম এলাকা হতে ১৭৮ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ী আটক। ✱ র‌্যাব-৮, সিপিসি-২ ফরিদপুর ক্যাম্প কর্তৃক ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানা হতে অপহরণকৃত ০৩ জন ভিকটিম উদ্ধার, অপহরণকারী চক্রের ০৪ জন সদস্য আটক। ✱ র‌্যাব-৯ এর অভিযানে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানাধীন এলাকা থেকে ২০(বিশ) কেজি গাঁজাসহ ০২ জন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। ✱ নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে কোভিড-১৯ টেষ্টের জাল অনুমতিপত্র তৈরি করে দেশব্যাপী কোভিড-১৯ টেষ্টের জন্য লোক নিয়োগের নামে প্রতারণা, র‌্যাব-১১ এর অভিযানে গ্রেফতার ০১ জন। ✱ র‌্যাব-৯ এর অভিযানে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানাধীন এলাকা থেকে ১,০০২ পিস ইয়াবা সহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। ✱ রাজধানীর কদমতলী এলাকায় নকল স্টিল রড/রি-রোলিং স্টিল উৎপাদন, মজুদ ও বিক্রি করায় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১৪ লক্ষ টাকা জরিমানা। ✱ নারায়ণগঞ্জ ও রাজধানীর কদমতলী হতে র‌্যাবের অভিযানে ৮৯,৬৩০ পিস নকল দেশী সিগারেটসহ ০২ সিগারেট কালোবাজারী গ্রেফতার। ✱ র‌্যাব-১১ এর অভিযানে ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ✱ র‌্যাব-১১ কর্তৃক ফতুল্লায় বুড়িগঙ্গা নদীতে চলাচলরত নৌযানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা, ১ জনকে কারাদন্ড ও ৪ জনকে জরিমানা ✱ ঢাকা জেলার আশুলিয়া এলাকা হতে ২৭ লক্ষ টাকা মূল্যমানের হেরোইনসহ ১ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪। ✱

সাম্প্রতিক কার্যক্রম

র‌্যাব-৯ এর অভিযানে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানাধীন এলাকা থেকে ১,০০২ পিস ইয়াবা সহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার।

২৩ জুলাই ২০২১ ইং তারিখ ১৩.২৫ ঘটিকার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৯, সিপিসি-২ (শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প) এর একটি আভিযানিক দল পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বসু দত্ত চাকমা এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় অফিসার/ফোর্স সহ অভিযান পরিচালনা করে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানাধীন ০৪ নং আদাঐর ইউনিয়ন পরিষদের অন্তর্গত রাজনগর সাকিনস্থ ‘‘তানভীর সুপার মার্কেট’’ এর সামনে পাকা রাস্তার উপর হইতে ক। ইয়াবা= ১,০০২(একহাজার দুই) পিস, খ। মোবাইল = ০২ টি, গ। সীম কার্ড = ০৩টি জব্দসহ ধৃত আসামী  ১। মোঃ মিটু মিয়া (২৮), পিতা- মোঃ আজগর আলী, সাং- রসুলপুর, থানা- মাধবপুর, জেলা- হবিগঞ্জ, ২। মোঃ মারজান মিয়া, পিতা- মোঃ মিনার মিয়া, সাং- রসুলপুর, থানা- মাধবপুর, জেলা- হবিগঞ্জ’দ্বয়কে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার লক্ষ্যে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) এর টেবিল ১০(ক)/৪১ ধারায় মামলা দায়ের পূর্বক আসামীদ্বয় এবং জব্দকৃত আলামত সহ হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে  

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে কোভিড-১৯ টেষ্টের জাল অনুমতিপত্র তৈরি করে দেশব্যাপী কোভিড-১৯ টেষ্টের জন্য লোক নিয়োগের নামে প্রতারণা, র‌্যাব-১১ এর অভিযানে গ্রেফতার ০১ জন।

র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উদঘাটন, অপরাধীদের গ্রেফতারসহ আইন শৃংখলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। র‌্যাব শুরু থেকে যে কোন ধরনের অপরাধ, প্রতারণামূলক অপরাধ প্রতিরোধ এবং প্রতারক চক্রকে সনাক্ত ও গ্রেফতারের জন্য নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে থাকে। করোনা মহামারী প্রাদুর্ভাবের এই সময় কোভিড-১৯ সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে র‌্যাব নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছে।   ২।    এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব ১১, সিপিএসসি এর বিশেষ অভিযানে ২২ জুলাই ২০২১ খ্রিষ্টাব্দ বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অভিযোগের প্রেক্ষিতে নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানাধীন বিশনন্দী পূর্বপাড়া এলাকা হতে মোঃ মোস্তাকিম আহমেদ (২৬), পিতা-মোঃ নজরুল ইসলাম’কে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে গফ গড়ংঃধশরস অযসবফ, অংংরংঃধহঃ এবহবৎধষ গধহধমবৎ, ঞকঝ ঐঊঅখঞঐ ঈঅজঊ  লেখা একটি আইডি কার্ড ও স্বল্প মূল্যে নিজস্ব অর্থায়নে সরকার অনুমোদিত র‌্যাপিড কিট দিয়ে সারা দেশব্যাপী কোভিড-১৯ টেষ্ট সংক্রান্ত স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের ভ‚য়া আদেশনামার কপি জব্দ করা হয়।   ৩।    গ্রেফতারকৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়, মোঃ মোস্তাকিম আহমেদ এর বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানাধীন বিশনন্দী পূর্বপাড়া এলাকায়। সে টিকেএস হেলথ কেয়ার নামক একটি অস্তিত্বহীন ভ‚য়া প্রতিষ্ঠানের এজিএম। সে তার অন্যান্য সহযোগীদের পরষ্পর যোগসাজশে কোভিড-১৯ টেষ্ট সংক্রান্ত ভ‚য়া সরকারি অনুমতিপত্র তৈরি করে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রæপে অপলোড করে সারা দেশব্যাপী কোভিড-১৯ টেষ্ট কার্যক্রমে লোক নিয়োগ দেওয়ার নামে চাকুরী প্রত্যাশীদের নিকট হতে আবেদন ফি বাবদ বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করে। বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নজরে এলে আইনি পদক্ষেপের জন্য তারা র‌্যাব’কে অবহিত করে এবং উক্ত বিষয়ে র‌্যাব কর্তৃক নিবিড় গোয়েন্দা অনুসন্ধান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত উক্ত প্রতারক চক্রকে সনাক্ত করা হয়। অতঃপর র‌্যাব-১১ এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল কর্তৃক অভিযান পরিচালনা করে প্রতারক চক্রের সক্রিয় সদস্য মোঃ মোস্তাকিম আহমেদ’কে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব-৯ এর অভিযানে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানাধীন এলাকা থেকে ২০(বিশ) কেজি গাঁজাসহ ০২ জন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার।

২৩ জুলাই ২০২১ ইং তারিখ দিবাগত রাত্রী ০৩.৫৫ ঘটিকার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৯, সিপিসি-২ (শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প) এর একটি আভিযানিক দল লেঃ কর্ণেল আবু মুসা মোঃ শরীফুল ইসলাম, এএসসি, পিএসসি (অধিনায়ক, র‌্যাব-৯, সিলেট) ও পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বসু দত্ত চাকমা এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় অফিসার/ফোর্স সহ অভিযান পরিচালনা করে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানাধীন ০৭ নং জগদীশপুর ইউনিয়নের অর্ন্তগত জগদীশপুর তেমুনিয়া মুক্তিযোদ্ধা চত্ত¡র এর ‘‘ভাই ভাই মাষ্টার স্টোর’’ এর সামনে মাধবপুর-সিলেট গামী পাকা রাস্তার উপর হইতে ক। গাঁজা = ২০ (বিশ) কেজি; খ। মোবাইল = ০২ টি; গ। সীম কার্ড =০৩টিসহ ধৃত ব্যক্তিদের হেফাজত হইতে উদ্ধারপূর্বক জব্দকরে ১। মোঃ মহরম আলী (২৪) পিতা- মৃত কাচন আলী, সাং- গেরারলক, থানা- চুনারুঘাট, জেলা-হবিগঞ্জ ২। মোঃ হেলাল মিয়া (১৯), পিতা- আফসার উদ্দিন, সাং- পশ্চিম পাকুরিয়া, থানা- চুনারুঘাট, জেলা- হবিগঞ্জ’দ্বয়কে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার লক্ষ্যে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) এর টেবিল ১৯(গ)/৪০ ধারায় মামলা দায়ের পূর্বক আসামীদ্বয় এবং জব্দকৃত আলামত হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

র‌্যাব-৮, সিপিসি-২ ফরিদপুর ক্যাম্প কর্তৃক ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানা হতে অপহরণকৃত ০৩ জন ভিকটিম উদ্ধার, অপহরণকারী চক্রের ০৪ জন সদস্য আটক।

র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উদ্ঘাটন, জঙ্গিবাদ দমন, অপরাধীদের গ্রেফতারসহ আইন শৃংখলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। র‌্যাব শুরুু থেকে যে কোন ধরণের অপরাধী, অপহরণ, মাদক উদ্ধার, অপহ¦ত ভিকটিম উদ্ধারসহ দেশের শীর্ষ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও বিভিন্ন প্রতারক চক্রকে গ্রেফতার করতে সার্বক্ষণিকভাবে অভিযান পরিচালনা করে থাকে।  ২।     র‌্যাব-৮, ফরিদপুর ক্যাম্পে অনেক ভুক্তভোগী বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অপরাধের অভিযোগ দায়ের করে থাকেন। এর ধারাবাহিকতায় গত ২২/০৭/২০২১ ইং আবু বক্কার শেখ  (মোবা-০১৭৬৬৯৭৫৩৮৮), পিতা-মৃত আঃ ছালেক মাতুব্বর, এবং সঙ্গীয় মোঃ শফিজ উদ্দিন শেখ, পিতা-মৃত আঃ বারিক শেখ, উভয় সাং-মহিশালা, থানা-বোয়ালমারী, জেলা-ফরিদপুরদ্বয় অত্র ক্যাম্পে হাজির হয়ে এই মর্মে অভিযোগ করেন যে, আমার ছেলে মোঃ শিমুল শেখ(২১) এবং তার বন্ধু মোঃ মিলন শেখ(২০), পিতা- মোঃ শফিজউদ্দিন শেখ সাং-মহিশালা, থানা-বোয়ালমারী, জেলা-ফরিদপুর গত ইং ২১/০৭/২০২১ তারিখ ২১/০৭/২০২১ তারিখ অনুমান ০৯.৩০ ঘটিকার সময় চা  খাওয়ার  জন্য বাড়ী থেকে বাহির হয়ে মহিশালা বাসস্ট্যান্ডে যায়. কিন্তু তাহারা আর বাড়ীতে ফেরত আসে নাই। আমরা অনেক খোজাখুজির পর তাদের কোন সন্ধান পায় নাই। পরবর্তীতে ২২/০৭/২০২১ তারিখ সকাল অনুমান ০৬.০০ ঘটিকার সময় আমার ছেলের বন্ধু মিলনের ব্যবহৃত মোবাইল দ্বারা অজ্ঞাতনামা একজন ব্যক্তি ফোন করে ৫০,০০০/- টাকা দাবি করে এবং মেরে ফেলার হুমকি দেয়। উক্ত ঘটনা অবহিত হওয়ার পর অত্র র‌্যাব ক্যাম্প ছায়া তদন্ত শুরু করেন। ছায়া তদন্তের মাধ্যমে র‌্যাব ক্যাম্প উক্ত ঘটনার সত্যতা পায় এবং আসামী গ্রেফতার ও ভিকটিম উদ্ধারে তৎপর হয়।   ৩।     গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে অত্র ক্যাম্প জানতে পারে যে উক্ত ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিরা ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানাধীন লক্ষীপুর গ্রামে অবস্থান করছে। আসামীদের সঠিক ঠিকানা পর্যালোচনার মাধ্যমে  অত্র ক্যাম্প ২৩ জুলাই ২০২১ তারিখ সকালে ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানাধীণ লক্ষীপুর গ্রাম এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ০১। মোঃ রাজীব শেখ(২৮), পিতা-মোঃ সুলতান শেখ, ০২। মোঃ সাগর খান(২২), পিতা-মোঃ মন্ডল খান, উভয় সাং-কানাইপুর, থানা-কোতয়ালী, জেলা-ফরিদপুর, ০৩। মোঃ নাইম মোল্লা(২০), পিতা-মোঃ সোহরাব মোল্লা, সাং-লাহুরিয়া, থানা-লোহাগাড়া, জেলা-নড়াইল, ০৪। মোঃ সাইফুল ইসলাম(২৭), পিতা-মোঃ আজিজুর রহমান, সাং-আজগরা, থানা-লাকসাম, জেলা-কুমিল্লাদেরকে আটক করে। এ সময় আসামীদেরকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় উক্ত জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করে যে, তাদের হেফাজতে ভিকটিম ০১। মোছাঃ মারুফা খাতুন(১৮), পিতা-মৃত রবিকুল ইসলাম, ০২। মোঃ শিমুল শেখ (২১), পিতা-আবু বক্কার শেখ, ০৩। মোঃ মিলন শেখ(২০), পিতা-মোঃ শফিজউদ্দিন শেখ আছে। পরবর্তীতে র‌্যাব-৮, সিপিসি-২, ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ আবদুর রহমান, পিএসসি এর নেতৃত্বে ইং ২৩/০৭/২০২১ তারিখ ফরিদপুর ফাইবার জুট মিল এর কর্মচারীদের বাসস্থান হতে ভিকটিম ০৩ জনকে উদ্ধার করেন। ৪      গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে  ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য এজাহার দায়ের করা হচ্ছে।   

র‌্যাব-৩ এর অভিযানে ঢাকা মহানগরীর দারুসসালাম এলাকা হতে ১৭৮ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ী আটক।

এলিট ফোর্স হিসেবে র‌্যাব আত্মপ্রকাশের সূচনালগ্ন থেকেই আইনের শাসন সমুন্নত রেখে দেশের সকল নাগরিকের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে অপরাধ চিহিৃতকরণ, প্রতিরোধ, শান্তি ও জনশৃংখলা রক্ষায় কাজ করে আসছে। বর্তমান সময়ে কতিপয় মাদক ব্যবসায়ীগণ ইয়াবা ট্যাবলেট, হেরোইন, গাঁজা, দেশী মদ, বিদেশী মদ, ফেন্সিডিলসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য অভিনব কায়দায় বহন করে নিয়ে আসছে। এ ধরনের মাদক ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য র‌্যাব সদা সচেষ্ট।     এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৩ গোয়েন্দা সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী চক্রের সদস্যরা আহাদ পরিবহন যোগে যাত্রী বেশে অবৈধ মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল এর চালান জয়পুরহাট থেকে গাবতলী, ঢাকায় বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে বহন করে নিয়ে আসছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৩ এর আভিযানিক দল ২২/০৭/২০২১ তারিখ ১৭৩০ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর দারুসসালাম থানাধীন মাজার রোড এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে মাদক ব্যবসায়ী ১। মোছাঃ মিতু আক্তার (২৩), পিতা-মোঃ তোতা মিয়া, সাং-মধ্য বাসুদেবপুর, থানা-হাকিমপুর, জেলা-দিনাজপুর এবং ২। মোছাঃ রিতু আক্তার (২১), স্বামী-মোঃ মহিনুল ইসলাম, সাং-মধ্য বাসুদেবপুর, থানা-হাকিমপুর, জেলা-দিনাজপুরদ্বয়কে ফেন্সিডিল ১৭৮ বোতলসহ হাতে নাতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।              প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে উক্ত গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয় কৃতকর্মের বিষয়টি স্বীকার করে এবং দীর্ঘদিন যাবৎ এই মাদক ব্যবসা করে আসছে বলে জানায়।     ধৃত আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।  

র‌্যাব-৩ এর দুইটি পৃথক অভিযানে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এবং নারায়ণগঞ্জ জেলার নারায়ণগঞ্জ সদর এলাকা হতে ২৮০ গ্রাম হেরোইনসহ ০৩ জন মাদক ব্যবসায়ী আটক।

র‌্যাব-৩ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, ঢাকা মহানগরীর যাত্রাবাড়ী থানাধীন ৮০/সি উত্তর যাত্রাবাড়ী ফুলজান টাওয়ার এবং নারায়ণগঞ্জ জেলার সদর থানাধীন এলাকায় কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী চক্রের সদস্যরা অবৈধ মাদকদ্রব্য হেরোইন বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৩ এর দুইটি পৃথক পৃথক আভিযানিক দল ২০/০৭/২০২১ তারিখ ২১০০ ঘটিকায় ৮০/সি উত্তর যাত্রাবাড়ী ফুলজান টাওয়ার ১নং গেইট বিবির বাগিচা এর উত্তর পার্শ্বে অভিযান পরিচালনা করে ১৩৪ গ্রাম হেরোইনসহ মাদক ব্যবসায়ী মোছাঃ ফাতেমা(৩২), জেলা-মুন্সীগঞ্জকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় এবং ২১/০৭/২০২১ তারিখ ১১১৫ ঘটিকায় নারায়ণগঞ্জ জেলার নারায়ণগঞ্জ সদর থানাধীন ২০ নবাব সলিমুল্লাহ রোড, ডনচেম্বারস্থ এস.এ. পরিবহন পার্শ্বেল এন্ড কুরিয়ার সার্ভিস এর সামনে অভিযান পরিচালনা করে ১৪৬ গ্রাম হেরোইনসহ ১। মোঃ হাফিজ (২৬), জেলা-নারায়ণগঞ্জ এবং ২। মোছাঃ রিনা বেগম (২৮), জেলা-নারায়ণগঞ্জদ্বয়কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।      গ্রেফতারকৃত ০৩ জন মাদক ব্যবসায়ীদের নিকট হতে সর্বমোট ২৮০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করা হয়।          প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে উক্ত গ্রেফতারকৃত আসামীরা তাদের কৃতকর্মের বিষয় স্বীকার করে এবং দীর্ঘদিন যাবৎ এই মাদক ব্যবসা করে আসছে বলে জানায়।     ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। 

র‌্যাব-১১ এর অভিযানে নারায়ণগঞ্জ হতে ৩ হাজার ৫ শত ৫০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১, সিপিএসসি, আদমজীনগর, নারায়ণগঞ্জের একটি আভিযানিক দল ২১ জুলাই ২০২১ ইং তারিখ দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলার সদর মডেল থানাধীন চাষাড়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে ৩,৫৫০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ীকে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ী হলো আমাদুল শেখ (৩২)। গ্রেফতারকৃত আসামী কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানাধীন গোবর গাড়া এলাকার সোবহান শেখ এর ছেলে।     প্রাথমিক অনুসন্ধান ও গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে দীর্ঘদিন যাবৎ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখকে ফাঁকি দিয়ে নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট সংগ্রহ করে নিয়ে এসে নারায়ণগঞ্জ ও এর আশে পাশের এলাকায় ক্রয়-বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। উক্ত বিষয়ে গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলার সদর মডেল থানায় মাদক আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা করা হয়েছে। মাদকের মতো সামাজিক ব্যাধির বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ঢাকা জেলার আশুলিয়া এলাকা হতে ২৭ লক্ষ টাকা মূল্যমানের হেরোইনসহ ১ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪।

২১ জুলাই ২০২১ ইং তারিখ সকাল ১০.৩০ ঘটিকায় র‌্যাব-৪ এর একটি আভিযানিক দল আশুলিয়া থানাধীন বাইপাইল এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ২৭ লক্ষ টাকা মূল্যমানের ২৬৪ গ্রাম হেরোইন, ০১ টি মোবাইল এবং মাদক বিক্রিত নগদ ৩,৯৬৫/- টাকাসহ নিম্নোক্ত ০১ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়ঃ     (ক)    মোসাঃ খাদিজা বেগম (৪০), জেলা-ঢাকা।     প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত আসামী দীর্ঘদিন যাবৎ দেশের সীমান্তবর্তী এলাকা হতে অবৈধ মাদকদ্রব্য হেরোইন সংগ্রহ করে ঢাকা জেলার আশুলিয়া ও ধামরাইসহ আশেপাশের বিভিন্ন এলাকার ডিলার ও খুচরা মাদক বিক্রেতাদের নিকট বিক্রয় করে আসছিলো।     উপরোক্ত বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

র‌্যাব-১১ কর্তৃক ফতুল্লায় বুড়িগঙ্গা নদীতে চলাচলরত নৌযানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা, ১ জনকে কারাদন্ড ও ৪ জনকে জরিমানা

নৌপথে চলাচলকারী নৌযানসমূহ এবং সংশ্লিষ্ট সর্বসাধারণকে অনাকঙ্খিত দূর্ঘটনা এড়ানোর লক্ষ্যে র‌্যাব-১১ কর্তৃক ১৯ জুলাই ২০২১ তারিখ দুপর ১২.৩০ ঘটিকা হতে বিকাল ১৭.০০ ঘটিকা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানাধীন কাশীপুরঘাট এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীতে নৌ পরিবহন অধিদপ্তরের সহযোগিতায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। উক্ত ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে নদীতে চলাচলকারী নৌযানসমূহতে সার্ভে ও রেজিষ্ট্রেশন সনদ না থাকা, জীবন রক্ষাকারী সরঞ্জাম না থাকা, মাষ্টার-ড্রাইভার সনদ না থাকা, সংঘর্ষ এড়িয়ে নিরাপদে চলাচলের বিধান অনুযায়ী চলাচল না করা ও অতিরিক্ত মালামাল বহন করার অপরাধে ০১ জন ব্যক্তিকে ০৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ০৪ জন ব্যক্তিকে মোট ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।  ০৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি হলেন এমভি মায়ের দোয়া নামক অনিবন্ধিত নৌযানের মোঃ বেল্লাল হোসেন (৪০), পিতা- মৃত গুলজার মন্ডল, সাং কোনারাজি, থানা- উল্লাপাড়া, জেলা- সিরাজগঞ্জ। এছাড়া এমভি স্বর্ণা পরিবহন নামক অনিবন্ধিত নৌযানের আবু হানিফ মোল্লা (৩৪), পিতা- মান্নান মোল্লা, সাং- চরকিলা, থানা- হিজলা, জেলা- বরিশাল’কে ৫০ হাজার টাকা; এমভি শিমু পরিবহন নামক নৌযানের মোঃ রিয়াজ (২৩), পিতা- মোঃ নুর ইসলাম, সাং- পাটুলী, থানা- বাজিতপুর, জেলা- কিশোরগঞ্জ’কে ৪০ হাজার টাকা; নামবিহীন অনিবন্ধিত ০১টি নৌযানের নাঈম খান (২৪), পিতা- মজিবুর রহমান খান, সাং- সানিকেদরপুর, থানা- বাবুগঞ্জ, জেলা- বরিশাল’কে ২০ হাজার টাকা এবং এমভি আজমীর শরীফ নামক নৌযানের মোঃ জানে আলম (৩৯), পিতা- মৃত সোবাহান শেখ, সাং- চর ঘোড়ামারা, থানা- আমিনপুর, জেলা- পাবনা’কে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।      নৌপথে চলাচলকারী নৌযানসমূহ এবং সংশ্লিষ্ট সর্বসাধারণকে অনাকঙ্খিত দূর্ঘটনা এড়ানোর লক্ষ্যে র‌্যাব-১১ এর অভিযান অব্যহত থাকবে।

র‌্যাব-১১ এর অভিযানে ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

১৯ জুলাই ২০২১ ইং তারিখ বিকাল ১৭:৫০ ঘটিকায় সময় র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন ওমরপুর এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে মাদক ব্যবসায়ী মোঃ সুমন মিয়া (৩১)’কে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীর হেফাজত হতে ২৮৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।     প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়, আটকৃত মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত আসামী নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা ও এর আশপাশের এলাকায় কিছুদিন যাবত মাদক দ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট ক্রয়-বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। মাদকের করাল গ্রাস থেকে যুব সমাজ তথা দেশকে বাঁচাতে র‌্যাব-১১ এর অভিযান অব্যাহত থাকবে।     গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।