সাম্প্রতিক কার্যক্রম :
র‌্যাব—৮, বরিশাল এর অভিযানে ০২ (দুই) জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। ✱ র‌্যাব-৩ এর অভিযানে রাজধানীর ফকিরাপুল এলাকা হতে প্রেস কর্মচারী রাসেল হত্যাকান্ডের মূল আসামী রক্তমাখা ছুরিসহ গ্রেফতার ✱ ফেনী জেলার ফেনী মডেল থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ০১ টি শর্টগান, ০২ টি পাইপগান, ০৫ রাউন্ড গুলি এবং বিপুল পরিমান দেশীয় অস্ত্র উদ্ধারসহ ০১ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে আটক করেছে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম ✱ মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ীতে র‌্যাবের বিশেষ অভিযানে বিদেশী রিভলবারসহ ০১ জন অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী গ্রেফতার ✱ র‌্যাব ৯ এর অভিযানে সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার থানা এলাকা থেকে বিদেশী মদসহ ০১ জন পেশাদার মাদক কারবারি গ্রেপ্তার ✱ র‌্যাব-২ এর অভিযানে রাজধানীর আদাবর থানা এলাকা হতে বালিশের ভিতরে লুকিয়ে আনা ৬০ লক্ষ টাকা মূল্যের হেরোইনসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ✱ র‌্যাব-১১ এর অভিযানে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানাধীন মদনপুর এলাকা হতে ৩৯৯ বোতল ফেন্সিডিল ও ০১ কেজি গাঁজাসহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার | ✱ ঢাকার ডেমরা ও দক্ষিন কেরাণীগঞ্জে র‌্যাবের পৃথক অভিযানে ২৮ জুয়াড়ি গ্রেফতার। ✱ রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে র‌্যাবের বিশেষ অভিযানে প্রায় সাড়ে ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ ০৪ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার; মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত ট্রাক জব্দ। ✱ র‌্যাব-৪ এর অভিযানে রাজধানীর মিরপুরের পাইকপাড়া এলাকা হতে ২ জন অনলাইন প্রতারক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। ✱

সাম্প্রতিক কার্যক্রম

র‌্যাব—৮, বরিশাল এর অভিযানে ০২ (দুই) জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার।

গত ১১ মে ২০২১ তারিখ বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ থানা এলাকায় একটি মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে। অভিযান পরিচালনাকালে আনুমানিক ১৬.৩০ ঘটিকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ থানাধীন সাহেবপুর গামী পাঁকা রাস্তার উপর মাদক জাতীয় দ্রব্য ক্রয়—বিক্রয় হচ্ছে। প্রাপ্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের আভিযানিক দলটি ১১ মে ২০২১ তারিখ আনুমানিক ১৭.১০ ঘটিকায় কৌশলগতভাবে ঘটনাস্থলের সন্নিকটে পেঁৗছলে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর চেষ্টাকালে র‌্যাব সদস্যরা ঘেরাও পূর্বক ০২ (দুই) জন ব্যক্তিকে আটক করে। আটককৃত ব্যক্তিদ্বয়কে জিজ্ঞাসাবাদে তাদের নাম (১) মোঃ কামাল মৃধা(৩৭), পিতাঃ মৃত জয়নাল আবেদীন, সাং— ফলাঘর, (২) মোঃ নাছির তালুকদার(৩৮), পিতাঃ মৃত হোসেন তালুকদার, সাং— সাহেবপুর, উভয় থানা—বাকেরগঞ্জ, জেলাঃ বরিশাল বলে জানায়। পরবতীর্তে স্থানীয় জনসাধারণের উপস্থিতিতে ধৃত আসামীদ্বয়ের নিকট থেকে ১৯ (উনিশ) পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ২৭৫ (দুইশত পচাঁত্তর) গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করে।

র‌্যাব-২ এর অভিযানে রাজধানীর আদাবর থানা এলাকা হতে বালিশের ভিতরে লুকিয়ে আনা ৬০ লক্ষ টাকা মূল্যের হেরোইনসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

র‌্যাব-২ এর আভিযানিক দল গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে, রাজধানীর আদাবর থানা এলাকায় কতিপয় মাদক কারবারী চক্রের সদস্য মাদকের একটি বড় চালান হস্তান্তরের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। এমন গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-২ এর আভিযানিক দল ১২/০৫/২১ ইং তারিখ ০০:০৫ ঘটিকায় রাজধানীর আদাবর থানাধীন বাইতুল আমান হাউজিং সোসাইটি এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে সন্দেহভাজন আন্তঃ জেলা মাদক কারবারী চক্রের সদস্য ক। মোঃ সোহেল (২৭), পিতা- মোঃ আহাজার আলী, রাজশাহী’কে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ ও তল্লাশীকালে সে মাদকের কথা অস্বীকার করে এবং তার সাথে থাকা বিছানাপত্র তল্লাশি করে বালিশের ভিতরে অভিনব কায়দায় লুকিয়ে আনা ৬০ লক্ষ টাকা মূল্যের ৬০০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক অনুসন্ধান ও আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে বিছানাপত্র নিয়ে গ্রামের বাড়িতে চলে যাচ্ছে এমন ছদ্মবেশের আড়ালে মাদক পরিবহন করেছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নজর এড়াতে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনী যাতে সন্দেহ না করে এবং সন্দেহ করলেও যাতে তল্লাশি করে কিছুই না পায় মূলত সে জন্যই বালিশে ভিতরে অভিনব কায়দায় মাদক বহন করে নিয়ে আসছিল। জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানায়, সে দীর্ঘ দিন ধরে দেশের বিভিন্ন সীমান্ত এলাকা হতে মাদক বহন করে নিয়ে আসে এবং তা রাজধানীর বিভিন্ন মাদক কারবারীদের নিকট হস্তান্তর করে আসছিলো। প্রতিবার মাদক বহনের ক্ষেত্রে সে বিভিন্ন নতুন নতুন কৌশল অবলম্বন করে থাকে বলেও জানায়।

র‌্যাব ৯ এর অভিযানে সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার থানা এলাকা থেকে বিদেশী মদসহ ০১ জন পেশাদার মাদক কারবারি গ্রেপ্তার

১২ মে ২০২১ ইং তারিখ ০৩.১৫ ঘটিকার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-০৯, এর সিপিএসসি (ইসলামপুর ক্যাম্প) এর একটি আভিযানিক দল অতিঃ পুলিশ সুপার মোঃ সামিউল আলম এর নেতৃত্বে সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার থানাধীন খন্তারগাও সাকিনস্থ জনৈক সোহেল এর দোকান ঘরের সামনে কাঁচা রাস্তার উপর অভিযান পরিচালনা করে ৫৬(ছাপ্পান্ন) বোতল বিদেশীমদ জব্দসহ পেশাদার মাদক কারবারি মোঃ আমিরুল ইসলাম (৩৫), পিতা- মোঃ আরশ আলী, সাং- সিংগেরকাচ, থানা- ছাতক, জেলা-সুনামগঞ্জ’কে গ্রেফতার করে। পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করার লক্ষে র‌্যাব মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮ এর ৩৬(১) এর ২৪ (খ) ধারা মূলে আসামীকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করেছে।

মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ীতে র‌্যাবের বিশেষ অভিযানে বিদেশী রিভলবারসহ ০১ জন অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী গ্রেফতার

গত ১১ মে ২০২১ খ্রিঃ তারিখ আনুমানিক ১৫:৪৫ ঘটিকার সময় র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী থানা এলাকায় একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ০১(এক) টি বিদেশী রিভলবারসহ ০১ জন অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির নাম মোঃ আল আমিন মোল্লা (৩২) বলে জানা যায়। এসময় তার নিকট হতে ০১(এক) টি মটরসাইকেল, ০২ টি মোবাইল ফোন ও নগদ- ৭৪৫/- টাকা জব্দ করা হয়।

ফেনী জেলার ফেনী মডেল থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ০১ টি শর্টগান, ০২ টি পাইপগান, ০৫ রাউন্ড গুলি এবং বিপুল পরিমান দেশীয় অস্ত্র উদ্ধারসহ ০১ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে আটক করেছে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম

র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম জনৈক মীর মোহাম্মদ এর মোবাইল ফোনের সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, ফেনী জেলার ফেনী মডেল থানাধীন ভূমি রেজিষ্ট্রার নতুন অফিসের পার্শ্বে নূরজাহান এন্টারপ্রাইজ নামক দোকানের ভিতর কতিপয় ব্যক্তি মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে গত ১১ মে ২০২১ ইং তারিখ ২০১০ ঘটিকায় র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম এর একটি আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে অভিযান পরিচালনা করে উপস্থিতি সাক্ষীদের সম্মুখে সংবাদদাতা মীর মোহাম্মদ এর দেখানো মতে তার ভাই নজরুল ইসলামের নূরজাহান এন্টারপ্রাইজ নামক দোকানের ভিতর সিলিং এর উপরে হতে ০১ টি শর্টগান, ০২ টি পাইপগান, ০৫ রাউন্ড গুলি এবং বিপুল পরিমান দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত আলামত সংক্রান্তে এবং সংবাদদাতাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে তার কথাবার্তায় অসমাঞ্জসতা পরিলক্ষিত হওয়ায় আসামী মীর মোহাম্মদ @ স্বপন (দলিল লেখক) (৪০) পিতা- আবু বক্কর সিদ্দিক, মাতা- মৃত নূরজাহান, সাং- মজলিশপুর, থানা ও জেলা- ফেনীকে আটক করে। পরবর্তীতে আসামীকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের সে জানায় যে, তার ভাই নজরুল ইসলাম এর সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ জায়গা জমি নিয়ে পূর্ব শত্রæতার জের ধরে ফাঁসানোর জন্যই পরিকল্পিতভাবে তার ভাই নজরুল ইসলামের অনুপস্থিতে বিশেষ কৌশলে উপরে বর্ণিত দোকানের ভিতর সিলিং এর উপর উদ্ধারকৃত আলামত রেখে দেয়। 

র‌্যাব-৩ এর অভিযানে রাজধানীর ফকিরাপুল এলাকা হতে প্রেস কর্মচারী রাসেল হত্যাকান্ডের মূল আসামী রক্তমাখা ছুরিসহ গ্রেফতার

গত ১১ মে ২০২১ তারিখে ২০৩০ ঘটিকায় মতিঝিল থানাধীন আরামবাগ হাই স্কুলের সামনে প্রেসের কর্মচারী রাসেল (২২) কে ডেকে নিয়ে তার বন্ধু শাকিল (২২) ছুরিকাঘাতে নির্মমভাবে হত্যা করে। উক্ত ঘটনার সংবাদ পাওয়ার পর  র‌্যাব-৩ এর  কুইক রেসপন্স টিম তাৎক্ষণিক গোয়েন্দা নজরদারী শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাবের আভিযানিক দল ১২ মে ২০২১ তারিখ রাত ০১০০ ঘটিকায় রাজধানীর ফকিরাপুলস্থ আল-আকাসা আবাসিক হোটেলে  অভিযান পরিচালনা করে রাসেল হত্যাকান্ডের মূল হোতা মোঃ শাকিল (২২), পিতা- মোঃ হযরত আলী বেপারী, মাতা- মোসা পারভিন বেগম, গ্রাম-চর আবাবিল, থানা- সদর, জেলা-  লক্ষীপুর কে  রক্তমাখা ছুরিসহ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।          প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধৃত শাকিল জানায় ভিকটিম রাসেল ও সে ঘনিষ্ঠ বন্ধু । শাকিল আরামবাগ এলাকার সাহারা প্রিন্টিং প্রেসের কর্মচারী হিসেবে কাজ করত। গত ১৮ ই এপ্রিল ২০২১ তারিখ মৃত ভিকটিম রাসেলের বান্ধবীর উপস্থিতিতে রাসেল ও শাকিলের মধ্যে মতানৈক্যের সৃষ্টি হয়। সেখানে রাসেল শাকিলের বন্ধুদের সামনে তাকে অপমান করে। উক্ত ঘটনা থেকে তাদের মধ্যে শত্রুতা তৈরী হয়।  উক্ত ঘটনাটি মীমাংসা করার জন্য  গত ১১ মে ২০২১ তারিখে ধৃত আসামী রাসেলকে মতিঝিল থানাধীন আরামবাগ হাই স্কুলের সামনে ডেকে নিয়ে আসে। রাসেলকে শায়েস্তা করার জন্য ধৃত শাকিল পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী প্যান্টের পকেটে করে ছুরি নিয়ে আসে। ঘটনাটি মীমাংসা কালে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী প্যান্টের পকেটে থাকা ছুরি দিয়ে সে রাসেলকে নির্মমভাবে আঘাত করে। রাসেলের রক্ত ক্ষরণ শুরু হলে শাকিল ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে আল-আকাসা আবাসিক হোটেলে অবস্থান নেয় । আহত রাসেলকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে।  

র‌্যাব-১১ এর অভিযানে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানাধীন মদনপুর এলাকা হতে ৩৯৯ বোতল ফেন্সিডিল ও ০১ কেজি গাঁজাসহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার |

১।    গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১, ব্যাটালিয়ন সদর এর একটি আভিযানিক দল অদ্য ০৯ মে ২০২১ তারিখ রাত ০৭:৪০ ঘটিকার সময় নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানাধীন মদনপুর এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ০২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীরা হলো ১। মোঃ মহিন উদ্দিন (২৭) এবং ২। মোঃ কাইয়ুম হোসেন (২২)। এ সময় তাদের হেফাজত হতে ৩৯৯ বোতল ফেন্সিডিল, ০১ কেজি গাঁজা, মাদক বিক্রিয় নগদ ৬৮৫০/- টাকা, মাদক ব্যবসার কাজে ব্যবহৃত ০৩ টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। ২।    গ্রেফতারকতৃ আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায় যে, তাদের স্থায়ী ঠিকানা কুমিল্লা জেলার সদর দক্ষিণ থানার সোয়াগাজী জগপুর এলাকায়। গ্রেফতারকৃত আসামীরা পরস্পর যোগসাজসে দীর্ঘদিন ধরে নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী, ঢাকা ও এর আশপাশের এলাকায় অভিনব পন্থায় নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল ও গাঁজা ক্রয়-বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। তারা আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার জন্য দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা করে আসছে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা আরোও জানায় যে, দীর্ঘদিন যাবৎ অবৈধভাবে কুমিল্লা সীমান্ত এলাকা দিয়ে বিশেষ কৌশলে মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল ও গাঁজা বাংলাদেশে প্রবেশ করায় এবং তা সংগ্রহ করে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করে আসছে। অদ্য ০৯ মে ২০২১ তারিখে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানাধীন মদনপুর এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ১। মোঃ মহিন উদ্দিন (২৭), ও তার সহযোগী  ২। মোঃ কাইয়ুম হোসেন (২২)’কে হাতে নাতে গ্রেফতার করা হয়। মাদকের মতো সামাজিক ব্যাধির বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।   ৩।    গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।   

সুন্দরবনে আত্মসমর্পনকারী ৩ শতাধিক জলদস্যুদের মাঝে র‌্যাবের ঈদ শুভেচ্ছা উপহার বিতরণ

    গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গত ০১ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে সুন্দরবনকে জলদস্যু মুক্ত ঘোষণা করেন। এখন শান্তির সু-বাতাস বইছে সুন্দরবনে। অপহরণ-হত্যা এখন তিরোহিত। জেলেদের কষ্টার্জিত উপার্জনের ভাগও কাউকে দিতে হচ্ছে না। মাওয়ালী, বাওয়ালী, বনজীবী, বন্যপ্রাণী এখন সবাই নিরাপদ বিশেষ করে মৎসজীবিরা। নির্ভয়ে নির্বিঘ্নে আসছে দর্শনার্থী-পর্যবেক্ষক এবং জাহাজ বণিকেরা। এভাবেই সরকারের দূরদর্শিতায় সুন্দরবন কেন্দ্রিক অর্থনৈতিক গতিশীলতার ব্যাপক সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হয়েছে। মূলতঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্ব, দিক নির্দেশনা ও পৃষ্ঠপোষকতা এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধান এবং র‌্যাবের সক্রিয় অংশগ্রহণে সুন্দরবন আজ জলদস্যু মুক্ত।     বর্তমানে আত্মসমর্পণকারী জলদস্যুরা পুনর্বাসিত হয়ে স্বাভাবিক জীবন যাপন করছেন। সরকারের পক্ষ থেকে আত্মসমর্পণকারী সকল জলদস্যু/বনদস্যুদের বিরুদ্ধে রুজুকৃত চাঞ্চল্যকর ও গুরুত্বপূর্ণ অপরাধের (হত্যা ও ধর্ষণ) মামলা ব্যতিত অন্যান্য সকল সাধারণ মামলা সহানুভূতি সহকারে বিবেচনার বিষয়টি চলমান রয়েছে।      এরই ধারাবাহিকতায়, বর্তমান করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় আত্মসমর্পণকারী কর্মহীন জলদস্যুদের সাহায্যার্থে এবং আসন্ন ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে অদ্য ০৯ মে ২০২১ তারিখে র‌্যাব ফোর্সেসের মহাপরিচালক মহোদয়ের পক্ষ হতে বরিশাল, বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলায় আত্মসমর্পণকৃত ৩ শতাধিক জলদস্যুদের মাঝে ঈদ শুভেচ্ছা উপহার প্রদান করা হয়। মহাপরিচালক, র‌্যাব ফোর্সেস এর পক্ষ থেকে আত্মসমর্পণকৃত জলদস্যুদের মাঝে ঈদের শুভেচ্ছা উপহার বিনিময় ও নগদ অর্থ প্রদান করেন র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক লেঃ কর্নেল রওশনুল ফিরোজ ও র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি জামিল হাসান। এসময় র‌্যাব-৬ ও র‌্যাব-৮ এর অধিনায়কগণ আত্মসমর্পণকৃত জলদস্যুদর সাথে ব্যক্তিগতভাবে কুশলাদি বিনিময় করেন, তাদের সমস্যার কথা শুনেন এবং সমস্যা সমাধানের জন্য উপযুক্ত সহযোগিতা ও নির্দেশনা প্রদান করেন।   

কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানাধীন হ্নীলা ইউপিস্থ নয়াপাড়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ০১ কেজি আইস ক্রিষ্টাল মেথসহ ০১ জন জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমার নাগরিক মাদক কারবারীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব ১৫

র‌্যাব-১৫, কক্সবাজার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক কারবারী কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানাধীন হ্নীলা ইউপিস্থ নয়াপাড়া সাকিনে জেলের ঘাট এলাকায় নুরানী জামে মসজিদ গেইটের বিপরীত পার্শ্বের টেকনাফ টু কক্সবাজার মেইন রোড সংলগ্ন হাফসা ভাত ঘরের সামনে মাদকদ্রব্য আইস/ক্রিষ্টাল মেথ ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৫ এর একটি চৌকশ আভিযানিক দল ০৮/০৫/২০২১ খ্রিঃ আনুমানিক ১৩.১৫ ঘটিকায় উপরোক্ত স্থানে পৌঁছালে র‌্যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে কতিপয় মাদক কারবারী পালিয়ে যাওয়ার প্রাক্কালে আসামী জোড়পূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমার নাগরিক মোঃ হামিদ (১৯),  পিতা-মৃত মোঃ হোসেন, মাতা-মাহমুদা খাতুন, ব্লক-এ-৩, ক্যাম্প-২৪, লেদা নতুন রোহিঙ্গা ক্যাম্প, থানা- টেকনাফ, জেলা-কক্সবাজারকে ধৃত করে। ঐ সময় উপস্থিত স্বাক্ষীদের সম্মুখে ধৃত আসামীর সাথে থাকা শপিং ব্যাগ তল্লাশী করে মোট ০১ (এক) কেজি আইস/ক্রিষ্টাল মেথ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধৃত আসামী স্বীকার করে যে, সে দীর্ঘদিন যাবত টেকনাফের সীমান্তবর্তী এলাকা হতে আইস/ক্রিষ্টাল মেথ সংগ্রহ করে কক্সবাজারসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্রয় করে আসছে।

র‌্যাব-৩ এর ০৭ টি পৃথক অভিযানে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ছিনতাইকারী চক্রের ২৩ জন সদস্য গ্রেফতার।

র‌্যাব-৩ এর ০৭ টি আভিযানিক দল গোয়েন্দা সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, ঢাকা মহানগরীর পল্টন, শাহবাগ, শাহজাহানপুর, হাতিরঝিল এবং যাত্রাবাড়ী এলাকায় কতিপয় ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা দীর্ঘদিন যাবৎ রাস্তায় চলাচলরত জনসাধারনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি প্রদর্শন ও আঘাতের মাধ্যমে জখম করে মূল্যবান সরঞ্জামাদি মোবাইল ফোন, টাকা-পয়সা, স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নিয়ে হয়রানি করে আসছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৩ এর অভিযানে, ১ম আভিযানিক দল ০৮/০৫/২০২১ তারিখ ১৬১৫ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর শাহবাগ থানাধীন এলাকা হতে ২০ টি মোবাইলফোন এবং ১৭ টি সীমকার্ডসহ ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য ১। মোঃ শাহজাহান (৩৫), জেলা-ভোলা, ২। মোঃ শাওন হাওলাদার (২২), জেলা-শরীয়তপুরদ্বয়কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। ২য় আভিযানিক দল ০৮/০৫/২০২১ তারিখ ১৫৩০ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর শাহবাগ থানাধীন এলাকা হতে ০৩ টি চাকুসহ ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য ১। মোঃ সুজন (২২), জেলা-কুমিল্লা, ২। মোঃ সজল (২৫), জেলা-পটুয়াখালী, ৩। মোঃ আরিফ (২০), জেলা-শরীয়তপুরদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। ৩য় আভিযানিক দল ০৮/০৫/২০২১ তারিখ ১৮৫০ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর পল্টন থানাধীন এলাকা হতে ০২ টি চাকু, ০১ টি বেøড এবং ০১ টি মোবাইলফোনসহ ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য ১। মোঃ হৃদয় মৃধা@রাসেল (২৬), জেলা-পটুয়াখালী, ২। মোঃ রিপন (৩৫), জেলা-বরগুনাদ্বয়কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। ৪র্থ আভিযানিক দল ০৮/০৫/২০২১ তারিখ ১৭১৫ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর যাত্রাবাড়ী থানাধীন এলাকা হতে ০৩ টি চাকু এবং ০১ টি চাঁপাতিসহ ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য ১। মোঃ জাভেদ (৩২), জেলা-ফরিদপুর, ২। আরিফ হোসেন (২৮), জেলা-নোয়াখালী, ৩ মোঃ আক্তার (৪৫), জেলা-শরীয়তপুর, ৪। মাছুম (৩২),                     জেলা-কিশোরগঞ্জদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। ৫ম আভিযানিক দল ০৮/০৫/২০২১ তারিখ ১৮৫৫ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর শাহজাহানপুর থানাধীন এলাকা হতে ০২ টি চাকু এবং ০১ টি চাঁপাতিসহ ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য ১। মোঃ বাবুল মিয়া (২৭), জেলা-কুমিল্লা,      ২। নাজু মিয়া (২৫), জেলা-জামালপুর, ৩। মোঃ সুজন (২২), জেলা-জামালপুরদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। ৬ষ্ঠ আভিযানিক দল ০৮/০৫/২০২১ তারিখ ২১২৫ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর হাতিরঝিল থানাধীন এলাকা হতে ০২ টি চাঁপাতি, ০৩ টি চাকু এবং ০৪ টি মোবাইলফোনসহ ১। মোঃ রাসেল(২০), জেলা-মাদারীপুর, ২। মোঃ কাউছার ইসলাম(১৯), জেলা-ফরিদপুর, ৩। মোঃ শুভ(২০), জেলা-জামালপুর, ৪। মোঃ সৃজন(১৯), জেলা-চাঁদপুর, ৫। মোঃ আকাশ মোল্লা(২০), জেলা-পটুয়াখালীদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। ৭ম আভিযানিক দল ০৮/০৫/২০২১ তারিখ ২১৩৫ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর শাহজাহানপুর থানাধীন এলাকা হতে চাকু ০৩ টি এবং বেøড ০২ টিসহ ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য ১। মোঃ শাওন চৌধুরী (১৯), জেলা-নারায়নগঞ্জ, ২। মোঃ জনি (১৯), জেলা-ময়মনসিংহ, ৩। মোঃ রনি মিয়া (২৫), জেলা-কুমিল্লা, ৪। মোঃ হৃদয় (২০), জেলা-ময়মনসিংহদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। মোট ০৭ টি অভিযানে ২৩ জন ছিনতাইকারী ধৃত হয়। তাদের নিকট হতে ০৪ টি চাঁপাতি, ১৬ টি চাকু, ০৩ টি বেøড, ২৫ টি মোবাইলফোন এবং ১৭ টি সীমকার্ড উদ্ধার করা হয়।              প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে উক্ত ধৃত ২৩ জন ছিনতাইকারী জানায় যে, তারা দীর্ঘদিন যাবৎ ঢাকা মহানগরীর পল্টন, শাহবাগ, শাহজাহানপুর, হাতিরঝিল এবং যাত্রাবাড়ী এলাকাসহ আশপাশ এলাকায় পথচারী, রিক্সা আরোহী এবং সিএনজির যাত্রীদের নিকট হতে মূল্যবান জিনিষপত্র ছিনতাই করে আসছে।