সাম্প্রতিক কার্যক্রম :
রাজধানীর চকবাজার ও কামরাঙ্গীরচর এলাকায় নকল কসমেটিক্স ও অস্বাস্থ্যকর খাবার উৎপাদন, মজুদ ও বিক্রি করায় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১৫ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা। ✱ ঢাকা হতে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জগামী কমিউটার ট্রেনে চাঞ্চল্যকর খুনসহ ডাকাতির ঘটনায় জড়িত ০৫ জন পেশাদার ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪। ✱ ঢাকা জেলার আশুলিয়া হতে ১২ বছরের শিশু অপহরণের ০৪ ঘন্টা পর ভূক্তভোগীকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৪; অপহরণকারী চক্রের ১১ সদস্য মাদক ও দেশীয় অস্ত্রসহ গ্রেফতার। ✱ র‌্যাব-৯, সিলেট এবং এ্যাক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট (সহকারী কমিশনার ভূমি), হবিগঞ্জ এর যৌথ অভিযানে হবিগঞ্জ জেলার হবিগঞ্জ সদর থানাধীন এলাকার ০১ টি বে-সরকারী হাসপাতালে অভিযান পরিচালনা করে = ৩৫,০০০/- টাকা জরিমানা আদায়। ✱ টিকটক চক্রের খপ্পরে পড়ে অপহৃত ৮ম শ্রেণীর ছাত্রীকে ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৪ঃ অপহরনকারী চক্রের ০১ সদস্য গ্রেফতার। ✱ র‌্যাব-৯, সিলেট এবং জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, সিলেট এর যৌথ অভিযানে সিলেট জেলার জৈন্তাপুর থানাধীন এলাকায় “প্রদত্ত মূল্যের বিনিময়ে প্রতিশ্রæত পণ্য বা সেবা প্রদান না করিবার অপরাধে” ০৫ টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা। ✱ কক্সবাজার হোটেলে চাঞ্চল্যকর নারী হত্যার প্রধান আসামী সাগরকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ✱ র‌্যাব-১১ এর পৃথক অভিযানে রূপগঞ্জ হতে ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী এবং ডাকাতি মামলার ০১ জন পলাতক আসামী গ্রেফতার। ✱ র‌্যাবের অভিযানে ঢাকার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ এলাকা হতে ২০ লক্ষ টাকা মূল্যের হেরোইনসহ ০২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। ✱ র‌্যাব-৯ এর অভিযানে সিলেট জেলার জকিগঞ্জ থানাধীন এলাকা হইতে ৭৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধার। ✱

চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া ও আনোয়ারা থানা এলাকায় পৃথক দুইটি অভিযান চালিয়ে আনুমানিক ০১ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা মূল্যের ৩৬,১১৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারসহ ০৭ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম; মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত দুইটি ট্রাক জব্দ।

প্রকাশের তারিখ : ০১-০২-২০২১

চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া ও আনোয়ারা থানা এলাকায় পৃথক দুইটি অভিযান চালিয়ে আনুমানিক ০১ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা মূল্যের ৩৬,১১৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারসহ ০৭ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে। নিম্নে বিস্তারিত উল্লেখ করা হলোঃ

ক।    র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী দুইটি ট্রাক যোগে বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য নিয়ে কক্সবাজার হতে চট্টগ্রামের দিকে আসছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে অদ্য ৩১ জানুয়ারি ২০২১ ইং তারিখ ০১০০ ঘটিকায় র‌্যাব-৭ এর একটি আভিযানিক দল চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া থানাধীন শান্তিরহাট মেসার্স ডিডি ফিলিং স্টেশন এর সম্মুখে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পশ্চিম পাশের্^ পাকা রাস্তার উপর একটি বিশেষ চেকপোস্ট স্থাপন করে গাড়ি তল্লাশি শুরু করে। এসময় র‌্যাবের চেকপোস্টের দিকে আসা দুইটি ট্রাকের গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে র‌্যাব সদস্যরা ট্রাক দুটি থামানোর সংকেত দিলে র‌্যাবের চেকপোস্টের সামনে থামিয়ে ট্রাক দুটি হতে ০৫ জন লোক সুকৌশলে পালানোর চেষ্টাকালে র‌্যাব সদস্যরা ধাওয়া করে আসামি চালক ১। মোঃ সিরাজ (৩৮), পিতা- মৃত আমির হোসেন, সাং- উত্তর নয়াপাড়া, বর্তমানে- সাং- চরপাড়া, থানা- টেকনাফ, জেলা- কক্সবাজার, হেলপার ২। ওমর ফারুক (২১), পিতা- মোঃ শামসুল আলম, সাং- বেইঙ্গা পাড়া, বর্তমানে- সাং- চামতলী পাড়া, থানা- টেকনাফ, জেলা- কক্সবাজার, ৩। গফুর আলম (২৬), পিতা- আবুল হোসেন, সাং- বেইঙ্গা পাড়া, থানা- টেকনাফ, জেলা- কক্সবাজার, চালক ৪। আমজাদ হোসেন (৪২), পিতা- নুরুল ইসলাম, সাং- কাজিরটেক, থানা- হাতিয়া, জেলা- নোয়াখালী এবং হেলপার ৫। জিয়াবুল হক (৪২), পিতা- মৃত ফয়জুর রহমান, সাং- শাহ্পরীরদ্বীপ, থানা- টেকনাফ, জেলা- কক্সবাজারদের আটক করে। পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামিদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে ১নং, ২নং এবং ৩নং আসামির দেখানো মতে ট্রাকের (ঢাকা মেট্রো-ট-২২-২৪৫৯) ড্রাইভিং সীটের পিছনে বিশেষ কায়দায় রক্ষিত অবস্থায় ১৭,৬৮০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ৪নং ও ৫নং আসামির দেখানো ও সনাক্তমতে অপর মিনি ট্রাক (চট্ট মেট্রো-ন-১১-৫৬৪৪) এর টুলবক্সের ভিতর সুকৌশলে লুকানো অবস্থায় ৭,৮০০ পিস (১৭,৬৮০+৭,৮০০) সর্বমোট ২৫,৪৮০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারসহ আসামিদের গ্রেফতার করা হয় এবং উক্ত ট্রাক দুইটি জব্দ করা হয়। 

খ।    র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, চট্টগ্রাম জেলার আনোয়ারা থানাধীন চুন্নাপাড়া (দইলার বাড়ি) এলাকায় মুহাম্মদ ইউনুচ এর বসত ঘরের ভিতর কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে গত ৩১ জানুয়ারি ২০২১ তারিখ ১৪২০ ঘটিকায় র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে অভিযান পরিচালনা করলে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে দুইজন ব্যক্তি দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে র‌্যাব সদস্যরা ধাওয়া করে আসামি ১। মুহাম্মদ ইউনুচ (৪৫), পিতা- নুর মোহাম্মদ, সাং- চুন্না পাড়া, থানা- আনোয়ারা, জেলা- চট্টগ্রাম এবং ২। মোঃ ইছহাক (৪৩), পিতা- মৃত আবুল কাশেম, সাং- তৈলার দ্বীপ, থানা- আনোয়ারা, জেলা- চট্টগ্রাম, বর্তমানে সাং- ওয়াপদারপাড়া (গরু বেপারী ইউছুপের টিনসেট বাড়ি) থানা- আনোয়ারা, জেলা- চট্টগ্রামদের’কে আটক করে। পরবর্তীতে উপস্থিতি সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামিদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের দেখানো ও সনাক্তমতে উক্ত ঘরের আলমিরার ড্রয়ারের ভিতর সুকৌশলে লুকানো অবস্থায় ১০,৬৩৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারসহ আসামিদের গ্রেফতার করা হয়। 

    গ্রেফতারকৃত আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন যাবত চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা হতে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে পরবর্তীতে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাচার করে আসছে। উদ্ধারকৃত মোট ৩৬,১১৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটের আনুমানিক মূল্য ০১ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা এবং জব্দকৃত ট্রাক দুইটির অনুমানিক মূল্য ৭০ লক্ষ টাকা
 

আমাদের অন্যান্য অর্জনসমূহ