অপরাধী দমন ও শান্তি প্রতিষ্ঠায় আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)

সাম্প্রতিক কার্যক্রম :
ঢাকা মহানগরীর পল্লবী থানাধীন এলাকা হতে অপহরনের ৩৬ ঘন্টার মধ্যে ভিকটিম উদ্ধারসহ অপহরনকারী ০৪ জন গ্রেফতার। ✱ রাজধানীর পল্লবী এলাকা হতে মেট্রো রেল প্রকল্পের মালামাল চুরির সংঘবদ্ধ চোর চক্রের ২ সদস্য’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪ঃ চোরাইকৃত মালামালসহ একটি পিকআপ ও সিএনজি জব্দ। ✱ র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর শ্যামপুর থানা এলাকা হতে ০২ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতারসহ ০১ টি বিদেশী পিস্তল, ০১ টি বিদেশী রিভলবার, ০১ টি ম্যাগাজিন, ০৪ রাউন্ড গুলি এবং ১৬৪ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার। ✱ র‌্যাব-৭ এর অভিযানে চট্টগ্রাম মহানগরীর পতেঙ্গা এলাকা হতে চোরাইকৃত ১১,৩১০ লিটার ডিজেল উদ্ধারসহ ০১ জন চোরাকারবারী আটক। ✱ র‌্যাব-৭ এর অভিযানে চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী এলাকা হতে ০১ টি থ্রি কোয়ার্টার এলজি, ০১ রাউন্ড গুলি, ০১ টি চাকু এবং ০১ টি দা’সহ ০১ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আটক ✱ র‌্যাব-৭ এর অভিযানে চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী এলাকা হতে ০১ টি থ্রি কোয়ার্টার এলজি, ০১ রাউন্ড গুলি, ০১ টি চাকু এবং ০১ টি দা’সহ ০১ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আটক। ✱ র‌্যাব-১১ এর অভিযানে নারায়ণগঞ্জের বন্দর হতে ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার, ০৬ কেজি গাঁজা উদ্ধার। ✱ র‌্যাব-৯, সলিটে এর অভযিানে মৌলভীবাজার জলোর সদর থানা এলাকা হতে ৫৮৬ পসি ইয়াবা’সহ একজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রফেতার। ✱ র‌্যাব-৮ সিপিসি-২ ফরিদপুর ক্যাম্প কর্তৃক ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানা হতে ইয়াবাসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী আটক ✱ র‌্যাব-১১ এর অভিযানে সিদ্ধিরগঞ্জ হতে ০১ চাঁদাবাজ গ্রেফতার ✱

চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন, বিপিএম, পিপিএম

মহাপরিচালক, র‌্যাব ফোর্সেস
র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)

আমাদের জানুন

বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ। আমাদের উন্নতির পথে যে সকল বাধা বিপত্তি রয়েছে তার মধ্যে, অস্থিতিশীল আইন শৃংখলা পরিস্থিতি অন্যতম। এরকম একটি পরিস্থিতিতে যখন সমাজের প্রত্যেকটা মানুষ অনিশ্চিয়তার মাঝে ভুগছিল, তখন পুলিশ বাহিনীর কার্যক্রমকে আরো গতিশীল ও কার্যকর করার লক্ষ্যে সরকার একটি এলিট ফোর্স গঠনের পরিকল্পনা করে। ক্রমান্বয়ে সভা-সমন্বয়, আলোচনা ও গবেষনার পর সরকার, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তত্ত্ববধানে  বাংলাদেশ পুলিশের অধীনে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন সংক্ষেপে র‌্যাব ফোর্সেস নামে একটি এলিট ফোর্স গঠনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। গত ২৬ মার্চ ২০০৪ তারিখে জাতীয় স্বাধীনতা দিবস প্যারেডে অংশ গ্রহনের মাধ্যমে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) জনসাধারনের সামনে আত্মপ্রকাশ করে। জন্মের পরপরই এই ফোর্সের ব্যাটালিয়নসমূহ সাংগঠনিক কর্মকান্ডে ব্যস্ত থাকে এবং স্ব স্ব এলাকা সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ শুরু করে। এর মাঝে প্রথম অপারেশনাল দায়িত্ব পায় ১৪ এপ্রিল ২০০৪ তারিখে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান-রমনা বটমুলে নিরাপত্তা বিধান করার জন্য । এর পর আবার র‌্যাব মূলত তথ্য সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত ছিল। গত ২১ জুন ২০০৪ থেকে র‌্যাব ফোর্সেস পূর্ণাঙ্গভাবে অপারেশনাল কার্যক্রম শুরু করে।

র‌্যাবের দায়িত্ব সমূহ

  • অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা দায়িত্ব।
  • অবৈধ অস্ত্র, গোলাবারুদ, বিস্ফোরক এবং এ জাতীয় অন্যান্য বস্তু উদ্ধার।
  • অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার।
  • আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে সহায়তা করা।
  • সন্ত্রাস ও সন্ত্রাসী সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ করা।
  • সরকার নির্দেশিত যে কোন অপরাধের তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করা।
  • সরকার নির্দেশিত যে কোন জাতীয় দায়িত্ব পালন করা।

র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

       পরিবার ও সমাজকে নিরাপদ রাখতে আপনাদের যা করণীয়

  • জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
  • ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না।
  • কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন।
  • আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্পূর্ন গোপন রাখা হবে।
  • বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান।
  • ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না।
  • যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া বিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহণ করা হইতে বিরত থাকা আবশ্যক।

টিভিসি

সাম্প্রতিক কার্যক্রম

ঢাকা মহানগরীর পল্লবী থানাধীন এলাকা হতে অপহরনের ৩৬ ঘন্টার মধ্যে ভিকটিম উদ্ধারসহ অপহরনকারী ০৪ জন গ্রেফতার।

র‌্যাব-৪ এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ইং ২০/০৯/২০২১ তারিখ দুপুর ১৩.০০ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর পল্লবী থানাধীন কালসী এলাকা হতে ধৃত মোঃ সোহেল (১৮) এর বাসায় অভিযান পরিচালনা করে ০১ জন ভিকটিম উদ্ধারসহ নিম্নোক্ত ০৪ জন অপহরনকারীকে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়ঃ     (ক)     মোঃ ফয়সাল (১৯), জেলা- মাদারীপুর।     (খ)     মোঃ সোহেল (১৮), জেলা- শরিয়তপুর।     (গ)     মোঃ রিয়াজ (১৯), জেলা- কিশোরগঞ্জ।     (ঘ)     মোঃ নুরু হোসেন ডালী (৪০), জেলা- মাদারীপুর     অপরাধের কৌশল ও বিস্তারিতঃ     সকলের উপস্থিতিতে ধৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে যে, মোঃ ফয়সাল (১৯) মোঃ নুর হোসেন ডালী (৪০) এর ছেলে। তার পিতা ধৃত ০৪ নং আসামী আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল। বাদীর নাবালিকা কন্যা ভিকটিম এর সহিত তার ছেলের সম্পর্কের বিষয়টি জানার পর থেকেই বিভিন্ন সময়ে এই বলে প্রলুব্ধ করতো যে, ধৃত আসামী মোঃ ফয়সাল (১৯) যদি বাদীর নাবালিকা কন্যাকে কোন ভাবে বিয়ে করতে পারে তাহলে সে ভিকটিমের পিতার সকল সম্পত্তির মালিক হতে পারবে। এরই প্রেক্ষিতে আসামীরা পরষ্পরের যোগসাজসে গত ১৯/০৯/২০২১ ইং তারিখ রাতে মিরপুর মডেল থানাধীন পীরেরবাগ এলাকা  থেকে বাদীর নাবালিকা কন্যাকে ফুসলিয়ে একটি অজ্ঞাত নম্বরের সিএনজিতে উঠিয়ে অপহরন করে নিয়া যায়। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়  অপহরনের পর হতে ফয়সাল একাধিকবার ভিকটিম’কে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষন করেছে এবং তাকে বিয়ে না করলে গলা টিপে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়।     গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন এবং এই ধরনের অপহরনকারীদের বিরুদ্ধে র‌্যাবের জোড়ালো অভিযান অব্যাহত থাকবে।

রাজধানীর পল্লবী এলাকা হতে মেট্রো রেল প্রকল্পের মালামাল চুরির সংঘবদ্ধ চোর চক্রের ২ সদস্য’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪ঃ চোরাইকৃত মালামালসহ একটি পিকআপ ও সিএনজি জব্দ।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০১৯ তারিখ মোঃ নাজমুল (১৮) তার মিরপুরের বাসা থেকে কাজের সন্ধানে যাওয়ার পর নিখোঁজ রয়েছে মর্মে পল্লবী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখে জানা যায় ডিএমপির তুরাগ থানাধীন একটি অসনাক্ত মৃতদেহ পাওয়া গেছে যা প্রায় ১ সাপ্তাহ পর নিখোঁজ ব্যক্তির পিতার মাধ্যমে শনাক্ত হয়। সে সংক্রান্তে তুরাগ থানায় একটি  অপমৃত্য মামলা রুজু হয়। যার প্রেক্ষিতে র‌্যাবের একটি দল এটির ছায়াতদন্ত শুরু করে।         এরই ধারাবাহিকতায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২০/০৯/২০২১ তারিখ ১০.১৫ ঘটিকায় র‌্যাব-৪ এর একটি আভিযানিক দল রাজধানীর পল্লবী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে চোরাইকৃত বিভিন্ন মলামাল (আনুমানিক মূল্য ৫,০০,০০০/-টাকা), ০১ টি পিকআপ, ০১ টি সিএনজি, ০২ টি মোবাইলসহ সংঘবদ্ধ চোরাকারবারী চক্রের নিম্নোক্ত ২ জন সদস্য’কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়ঃ     (ক)        মোঃ আশিক (১৯), জেলাঃ গাজীপুর।     (খ)        মোঃ হারুন (৪০), জেলাঃ ঢাকা।                          প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, নিহত নাজমুল আশিক, রাসেল এবং শামীম একই সাথে কাজ করত। গত ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখে রাসেল এবং শামীম নিহত নাজমুলকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে যায়। ঐ রাতে আশিক ও তাদের সাথে বরাবরের মতো চুরির কাজে যোগ দেয়। র‌্যাবের অভিযানকালে আরো জানা যায় এই চক্রটি বেশকিছু দিন ধরে মেট্রোরেলের মালামালসহ অন্যান্য সরকারী কাজের মালামাল এবং বৈদ্যুতিক তার চুরির কাজ করে আসছিল। র‌্যাবের অভিযানে আশিক (১৯) গ্রেফতার হলে উক্ত বিষয়ে সত্যতা পাওয়া যায়। প্রসঙ্গক্রমে আশিককে জিজ্ঞাসাবাদকালে নাজমুল এর মৃত্যুর ঘটনা সম্পর্কে প্রাথমিক ভাবে জানা যায় উক্ত ঘটনার সংক্রান্তে রাসেল, শামীম এবং আশিকের উপস্থিতিতে নাজমুল বৈদ্যুতিক তার কাটতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে ঘটনাস্থলে মৃত্যুবরণ করে। এ সংক্রান্তে তুরাগ থানায় অপমৃত্যু মামলা তদন্তাধীন রয়েছে। তারা আরোও জানায় যে, ঢাকা মহানগরীর পল্লবী থানাধীন এলাকায় পরষ্পরের যোগসাজসে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্প ছাড়াও আরো গুরুত্বপূর্ন প্রকল্পের অপ্রয়োজনীয় লোহা, ইস্পাত, তার, মেশিন কৌশলে চুরির ঘটনার সাথে জড়িত মর্মে স্বীকারোক্তি প্রদান করেছে। জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানা যায় যে, তারা একটি বিশেষ সংঘবদ্ধ চোরাকারবারী চক্রের সাথেও জড়িত। ধৃত আসামীরা পরস্পর যোগসাজোশে কিছুদিন যাবত ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্প ছাড়াও আরো গুরুত্বপূর্ন প্রকল্পের অপ্রয়োজনীয় লোহা, ইস্পাত, তার, মেশিন কৌশলে চুরি করে খন্ড খন্ড করে কেটে তা বিভিন্ন ভাঙ্গারী ব্যবসায়ীদের নিকট বিক্রয় করে আসছিল। অপরাধের কৌশলঃ     গত কয়েক বছর যাবত ঢাকাসহ আশপাশ জেলা সমূহে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প পরিচালিত হয়ে আসছে। উক্ত প্রকল্প সমূহের কার্যক্রম চলাকালীন সময়ে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন উপকরন স্তুপ আকারে থাকা কালে একটি সংঘবদ্ধ চোরাকারবারি দল সু-কৌশলে সুবিধা বুঝে সুযোগ মতো চুরি করে তাদের পছন্দ মতো গোপন একটি জায়গায় নিয়ে এসে সেগুলো’কে সহজে বহনযোগ্য করে বিভিন্ন ক্রেতাদের নিকট তা বিক্রয় করে থাকে। তাদের উক্ত চোরাই চক্রটি মূলত এই চুরির কাজটি নিম্নবর্ণিত ধাপে সম্পন্ন করে থাকেঃ তথ্য প্রদানঃ     প্রথমে এই চোরাকারবারি চক্রটি সু-কৌশলে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করে এবং সেই অনুযায়ী চুরির পরিকল্পনা করে থাকে। সাহায্যকারী ব্যক্তিঃ     পরবর্তীতে চক্রটি প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে বিভিন্ন উপকরন সুবিধা বুঝে সুযোগ মতো চুরি করে তাদের পছন্দ মতো গোপন একটি জায়গায় নিয়ে লুকিয়ে রাখে। দালাল (বিভিন্ন ধাপ)ঃ      এই ধাপে একটি গ্রæপ চোরাইকৃত উপকরন সমূহ পরিবর্তন পরিবর্ধন করে সহজে বহনযোগ্য করে থাকে। পরবর্তীতে উক্ত মালামাল সমূহ ক্রয় করে এরূপ ক্রেতাদের সাথে প্রথম ধাপের চোরাই দলের সাথে যোগাযোগ করে দেয়। ইচ্ছুক ক্রেতাঃ     এই ধাপে মূলত চোরাইকৃত মালামাল ক্রয়-বিক্রয়ের কাজটি সম্পন্ন করা হয়ে থাকে। এতে চোরাই চক্রটি তাদের চোরাইকৃত পরিবর্তন ও পরিবর্ধনকৃত মালামাল তাদের পূর্বে থেকে নির্ধারিত ক্রেতাদের নিকট একটি নিদিষ্ট মূল্যের বিনিময়ে বিক্রয় করে থাকে। চোরাই চক্রসহ অন্যান্য চক্রের আরও অনেক পলাতক আসামী রয়েছে। তাদের গ্রেফতারে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।         উপরোক্ত বিষয়ে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। অদূর ভবিষ্যতে এরূপ সংঘবদ্ধ চোরাকারবারী দলসহ অন্যান্যদের বিরুদ্ধে র‌্যাব-৪ এর জোড়ালো অভিযান অব্যাহত থাকবে।

র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর শ্যামপুর থানা এলাকা হতে ০২ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতারসহ ০১ টি বিদেশী পিস্তল, ০১ টি বিদেশী রিভলবার, ০১ টি ম্যাগাজিন, ০৪ রাউন্ড গুলি এবং ১৬৪ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার।

গোয়েন্দা সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব জানতে পারে যে, ঢাকা মহানগরীর শ্যামপুর মডেল থানা এলাকায় কতিপয় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য অবস্থান করছে। উক্ত গোয়েন্দা সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৩ এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল ২১/০৯/২০২১ তারিখ ০৩৪৫ ঘটিকার সময় ঢাকা মহানগরীর শ্যামপুর থানা এলাকার আইজি গেইট বস্তিতে অভিযান পরিচালনা করে অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী ১। মোঃ ইয়াসিন @ মোঃ আবুল হোসেন আবুল (৪২), সাং-বোয়ালিয়া, থানা-মুলাদী, জেলা-বরিশাল এবং ২। মোঃ বাবুল @ কৃষ্ণা বাবুল (৪৭), সাং-মাছিমপুর, থানা-তিতাস, জেলা-কুমিল্লাদ্বয়কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারকৃত উক্ত আসামীদ্বয়ের নিকট হতে ০১ টি বিদেশী পিস্তল, ০১ টি বিদেশী রিভলবার, ০১ টি ম্যাগাজিন, ০৪ রাউন্ড গুলি এবং ১৬৪ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।      প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধৃত আসামীদ্বয় অস্ত্র, গুলির বিষয়ে কোনো বৈধ কাগজপত্র প্রদর্শন করতে পারে নাই। জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায় যে, তারা শ্যামপুর এলাকাসহ ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে দীর্ঘদিন যাবৎ নেশাজাতীয় অবৈধ মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট ক্রয়-বিক্রয় করে আসছে এবং এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও মাদক বিক্রয়ের টাকা সংগ্রহে ভয়ভীতি প্রদর্শনের জন্য তারা এই অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে আসছে। উল্লেখ্য যে, ধৃত আসামীদ্বয়ের নামে শ্যামপুর থানায় দুইটি অস্ত্র ও মাদক মামলা বিচারাধীন রয়েছে।     ধৃত আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে শ্যামপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।  

র‌্যাব-৭ এর অভিযানে চট্টগ্রাম মহানগরীর পতেঙ্গা এলাকা হতে চোরাইকৃত ১১,৩১০ লিটার ডিজেল উদ্ধারসহ ০১ জন চোরাকারবারী আটক।

র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় চোরাকারবারী চট্টগ্রাম মহানগরীর পতেঙ্গা এলাকায় অবৈধ উপায়ে ক্রয়-বিক্রয় করার উদ্দেশ্যে চোরাইকৃত ডিজেল মজুদ করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে গত ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখ ১৩৩০ ঘটিকায় র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম এর একটি চৌকস আভিযানিক দল বর্ণিত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করলে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে র‌্যাব সদস্যরা ধাওয়া করে আসামী মোঃ তারেক (১৯), পিতা- মোঃ নুর, সাং- দক্ষিণ পতেঙ্গা, থানা- পতেঙ্গা, চট্টগ্রাম মহানগরীকে আটক করে। পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে তার দেখানোমতে নিজ দখলে থাকা বসত ঘর তল্লাশি করে ১৪৩ টি জারিক্যান ও ২৫ টি ড্রাম হতে চোরাইকৃত সর্বমোট ১১,৩১০ লিটার ডিজেল উদ্ধারসহ আসামীকে গ্রেফতার করা হয়। আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায়, সে দীর্ঘদিন যাবত অবৈধ উপায়ে ডিজেল মজুদ করে পরবর্তীতে অপেক্ষাকৃত কম মূল্যে পাইকারী ও খুচরা বিক্রয় করে আসছে। উদ্ধারকৃত ডিজেলের আনুমানিক মূল্য ০৮ লক্ষ টাকা।        গ্রেফতারকৃত আসামী ও উদ্ধারকৃত আলামত সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে চট্টগ্রাম মহানগরীর পতেঙ্গা মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।  

র‌্যাব-৭ এর অভিযানে চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী এলাকা হতে ০১ টি থ্রি কোয়ার্টার এলজি, ০১ রাউন্ড গুলি, ০১ টি চাকু এবং ০১ টি দা’সহ ০১ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আটক

র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উদ্ঘাটন, অপরাধীদের গ্রেফতারসহ আইন শৃংখলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। র‌্যাবের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ধর্ষক, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, ডাকাত, খুনি, বিপুল পরিমান অবৈধ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার, মাদক উদ্ধার, ছিনতাইকারী, অপহরণকারী, মানবপাচারকারী ও প্রতারকদের গ্রেফতার করে সাধারণ জনগনের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।     এরই ধারাবাহিকতায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখ ১৬৫০ ঘটিকায় র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম এর একটি আভিযানিক দল চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ০১ টি থ্রি কোয়ার্টার এলজি, ০১ রাউন্ড গুলি, ০১ টি চাকু এবং ০১ টি দা উদ্ধারসহ ০১ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির নাম মোঃ লোকমান হাকীম (২০), পিতা- মোঃ আলমগীর, সাং- পশ্চিম বড়ঘোনা, থানা-বাঁশখালী, জেলা- চট্টগ্রাম বলে জানা যায়।      প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় অস্ত্র ক্রয়-বিক্রয়সহ অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরণের সন্ত্রাসী কার্যক্রম করে আসছে।      গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে।  

র‌্যাব-৭ এর অভিযানে চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী এলাকা হতে ০১ টি থ্রি কোয়ার্টার এলজি, ০১ রাউন্ড গুলি, ০১ টি চাকু এবং ০১ টি দা’সহ ০১ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আটক।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখ ১৬৫০ ঘটিকায় র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম এর একটি আভিযানিক দল চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ০১ টি থ্রি কোয়ার্টার এলজি, ০১ রাউন্ড গুলি, ০১ টি চাকু এবং ০১ টি দা উদ্ধারসহ ০১ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির নাম মোঃ লোকমান হাকীম (২০), পিতা- মোঃ আলমগীর, সাং- পশ্চিম বড়ঘোনা, থানা-বাঁশখালী, জেলা- চট্টগ্রাম বলে জানা যায়।      প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় অস্ত্র ক্রয়-বিক্রয়সহ অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরণের সন্ত্রাসী কার্যক্রম করে আসছে।      গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে।  

র‌্যাব-১১ এর অভিযানে নারায়ণগঞ্জের বন্দর হতে ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার, ০৬ কেজি গাঁজা উদ্ধার।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১, সিপিএসসি, আদমজীনগর, নারায়ণগঞ্জের একটি আভিযানিক দল ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং তারিখ সকালে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানাধীন ত্রিবেনী এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে ০৬ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী মোঃ আব্দুল মান্নান (২৮), পিতা- মোঃ আজিম @ দুদু মিয়া’কে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়।      প্রাথমিক অনুসন্ধান ও গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ আব্দুল মান্নান এর বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানাধীন চাঁনমারী এলাকায়। গ্রেফতারকৃত আসামী দীর্ঘদিন যাবৎ কুমিল্লা জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য গাঁজা সংগ্রহ করে নিয়ে এসে নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানা ও এর আশেপাশের এলাকায় ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল। মাদকের মতো সামাজিক ব্যাধির বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।     উক্ত বিষয়ে গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানায় মাদক আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা করা হয়েছে। 

র‌্যাব-৯, সলিটে এর অভযিানে মৌলভীবাজার জলোর সদর থানা এলাকা হতে ৫৮৬ পসি ইয়াবা’সহ একজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রফেতার।

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখ দুপুর ১৪ : ০৫ ঘটিকার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৯, সিপিসি-২ (শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প) এর একটি আভিযানিক দল অতিঃ পুলিশ সুপার বসু দত্ত চাকমা এবং সিনিঃ এএসপি মোঃ লুৎফুর রহমান এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্সসহ মৌলভীবাজার সদর মডেল থানাধীন ১২ নং গিয়াসনগর ইউপিস্থ ঘরষ অশধংয ইঁৎমবৎ ঐড়ঁংব এর সামনের রাস্তা মৌলভীবাজার-শ্রীমঙ্গল গামী রাস্তার উপর হইতে ক। ৫৮৬ পিস ইয়াবা’সহ আলাল মিয়া (৩২), পিতা- মৃত মানিক মিয়া, সাং- নিতেশ^র মোকাম বাজার, থানা- মৌলভীবাজার সদর, জেলা- মৌলভীবাজার’কে গ্রেফতার করে। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের লক্ষ্যে গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন; ২০১৮ এর ৩৬(১) এর টেবিল ১০(ক)/৪১ ধারায় মামলা দায়ের করে মৌলভীবাজার সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

র‌্যাব-৮ সিপিসি-২ ফরিদপুর ক্যাম্প কর্তৃক ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানা হতে ইয়াবাসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী আটক

র‌্যাব-৮, সিপিসি-২, ফরিদপুর ক্যাম্প গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, ০১ জন  মাদক ব্যবসায়ী মাগুরা- ফরিদপুর মহাসড়ক ব্যবহার করে সোহাগ পরিবহন যোগে মাদক দ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট এর একটি চালান নিয়ে ফরিদপুর এর উদ্দেশ্যে গমন করেছে। এ বিষয়ে ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্প গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য গভীর অনুসন্ধান করে ঘটনার সত্যতা পায়। তদ্প্রেক্ষিতে ১৮/০৯/২০২১ইং তারিখ দুপুরে র‌্যাব-৮, সিপিসি-২ ফরিদপুর ক্যাম্পর একটি বিশেষ আভিযানিক দল গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানাধীন বদরপুর গ্রামস্থ মাগুরা-ফরিদপুর মহাসড়কের উপর চেক পোস্ট স্থাপন করে সোহাগ পরিবহন নামক বাস থামিয়ে মাদক ব্যবসায়ী আসামী ০১। রবিন আহম্মেদ সোহেল(৩২), পিতা- ইব্রাহিম আহম্মেদ, সাং-ভাল্লাকান্দা, থানা-শিবপুর, জেলা-নরসিংদী’কে গ্রেফতার করেন। এ সময় গ্রেফতারকৃত আসামীর হেফাজতে থাকা ১,০০৫ (এক হাজার পাঁচ) পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট এবং মাদক দ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় কাজে ব্যবহৃত ০৪ টি সীমকার্ডসহ ০২টি মোবাইল ফোন এবং মাদক বিক্রিত ৩,০০০/- টাকা জব্দ করা হয়। ধৃত আসামীর স্বীকারোক্তি এবং স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে জানা যায় যে, সে একজন পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী সে দীর্ঘদিন যাবৎ মাগুরা-ফরিদপুর মহাসড়ক ব্যবহার করে ফরিদপুর জেলার বিভিন্ন এলাকায় মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয় করে আসছে।     উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্য ও অন্যান্য আলামত সহ গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা প্রক্রিয়াধীন।   

র‌্যাব-১১ এর অভিযানে সিদ্ধিরগঞ্জ হতে ০১ চাঁদাবাজ গ্রেফতার

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রিষ্টাব্দে সন্ধ্যায় র‌্যাব-১১, সিপিএসসি এর বিশেষ অভিযানে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন সিদ্ধিরগঞ্জ পুল এলাকায় ফুটপাতে ভাসমান দোকানে চাঁদাবাজি করার সময় ০১ জন চাঁদাবাজ’কে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত চাঁদাবাজ হলো ১। মোঃ আলাউদ্দিন হাওলাদার (৬১)। এ সময় তার দখল হতে চাঁদাবাজির নগদ ১,৭৬০/- টাকা উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ আলাউদ্দিন হাওলাদার পটুয়াখালী জেলার দুমকি থানাধীন লেবুয়াখালী এলাকার মৃত আঃ রহমান এর ছেলে।     উপস্থিত স্বাক্ষী, একাধিক দোকান মালিক এবং গ্রেফতারকৃতকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত আসামী চাঁদাবাজ চক্রের সক্রিয় সদস্য। সে দীর্ঘদিন যাবৎ নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন সিদ্ধিরগঞ্জ পুল এলাকায় ফুটপাতে ভাসমান দোকান মালিকদের ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে জোরপূর্বক দোকানপ্রতি ১০০/- টাকা থেকে ১৫০/-টাকা করে চাঁদা আদায় করে আসছিল। একাধিক দোকান মালিকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ও স্থানীয় জনসাধারণের কাছ থেকে জানা যায়, কোন দোকান মালিক চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাদের মারধরসহ জীবন নাশের হুমকি প্রদান করে আসছিল। চাঁদাবাজি বন্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।      উক্ত বিষয়ে গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।   

সহজে ইনস্টল করুন, রিপোর্ট করুন, নিরাপদ থাকুন

রিপোর্ট টু র‌্যাব মোবাইল অ্যাপস

সন্ত্রাসী আক্রমন

র‍্যাবকে সন্ত্রাসী আক্রমনের তথ্য দিতে পারবেন

সন্ত্রাসী তথ্য

র‍্যাবকে সন্ত্রাসীর তথ্য দিতে পারবেন

সামাজিক যোগাযোগ

র‍্যাবকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম গুলতে অপরাধের তথ্য দিতে পারবেন

অপহরন

র‍্যাবকে অপহরনের তথ্য দিতে পারবেন

নিখোঁজ ব্যাক্তির তথ্য

র‍্যাবকে নিখোঁজ ব্যাক্তির তথ্য দিতে পারবেন

খুন

র‍্যাবকে খুনের তথ্য দিয়ে সাহায্য করতে পারবেন

ডাকাতি

র‍্যাবকে ডাকাতির তথ্য দিয়ে সাহায্য করতে পারবেন

মাদক

র‍্যাবকে মাদকের তথ্য দিতে পারবেন

সম্মাননা



  • অতিরিক্ত আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম(বার)

    মহাপরিচালক

    র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তর

    বিপিএম - ২০১৯

  • পুলিশ সুপার মুহম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী বিপিএম

    র‌্যাব-২

    বিপিএম - ২০১৯

  • সাজেন্ট মোঃ শহীদুল ইসলাম,বিপিএম

    ইন্ট উইং

    র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তর

    বিপিএম - ২০১৯

  • সৈনিক মোঃ রাকিব হোসেন,বিপিএম

    র‌্যাব-১

    বিপিএম - ২০১৯

  • কর্নেল তোফায়েল মোস্তফা সরোয়ার পিএসসি, বিপিএম(সেবা)

    অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশনস্)

    র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তর

    বিপিএম (সেবা) - ২০১৯

  • লেঃ কর্নেল মোঃ মাহাবুব আলম বিপিএম(বার),বিপিএম(সেবা),পিপিএম

    অপস্ /ইন্ট উইং

    র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তর

    বিপিএম (সেবা) - ২০১৯

  • লেঃ কর্নেল মীর আসাদুল আলম, বিপিএম (সেবা)

    এয়ার উইং

    র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তর

    বিপিএম (সেবা) - ২০১৯

  • মেজর শাহীন আজাদ,বিপিএম, পিপিএম,জি+

    ইন্ট উইং

    র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তর

    পিপিএম - ২০১৯

  • মেজর এস এম সুদীপ্ত শাহীন,পিপিএম(বার)

    অপস উইং

    র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তর

    পিপিএম - ২০১৯

  • মেজর খান সজিবুল ইসলাম,পিপিএম

    র‌্যাব-৮

    পিপিএম - ২০১৯

ফটো গ্যালারি

ভিডিও গ্যালারি

র‌্যাব ব্যাটালিয়ন সমূহের তথ্য

র‌্যাব ব্যাটালিয়ন সমূহ