Home » News Room » র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর শাহবাগ থানাধীন পরীবাগ হতে নিজেকে বিভিন্ন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার ভূয়া পরিচয় দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে অবৈধ সুবিধা আদায়কারী একজনকে ০১ টি বিদেশী পিস্তল ও ০৩ রাউন্ড গুলিসহ গ্রেফতার।

র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর শাহবাগ থানাধীন পরীবাগ হতে নিজেকে বিভিন্ন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার ভূয়া পরিচয় দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে অবৈধ সুবিধা আদায়কারী একজনকে ০১ টি বিদেশী পিস্তল ও ০৩ রাউন্ড গুলিসহ গ্রেফতার।

১। অবৈধ অস্ত্রধারী ও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার এবং আইনের আওতায় আনা এলিট ফোর্স র‌্যাবের একটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব এবং এটি র‌্যাবের চলমান আভিযানিক কর্মকান্ডেরই একটি অংশ। দেশের সন্ত্রাস প্রবণ এলাকা সমূহে র‌্যাব এর অভিযানের ফলে জনগণ শান্তিতে জীবন যাপন করছে এবং আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি জনগণের আস্থা ফিরে এসেছে। এলিট ফোর্স র‌্যাব প্রতিষ্ঠার পর হতে অদ্যবধি অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আপোষহীন এবং নিরলস গ্রেফতার অভিযান চলমান রেখেছে।

২।    ভুক্তভোগী জনসাধারনের অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব-২ জানতে পারে যে, এক ব্যাক্তি নিজেকে উচ্চপদস্থ সামরিক/বেসামরিক কর্মকর্তা এবং রাজনৈতিক নেতা সহ বিভিন্ন পরিচয়ে একটি সংঘবদ্ধ অপরাধ চক্রের মাধ্যমে দীর্ঘদিন যাবৎ সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষদের ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ নানাবিধ অপরাধ করে আসছে। উক্ত ঘটনার প্রেক্ষিতে র‌্যাব ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে।

৩।    এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৪ মার্চ ২০১৮ খ্রিঃ তারিখে র‌্যাব-২, এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, রাজধানীর শাহবাগ থানাধীন পরীবাগস্থ বাসা নং-১২, শেলটেক দ্বীন মঞ্জিল এর সামনে পাকা রাস্তায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করার জন্য উক্ত দলের কতিপয় সন্ত্রাসী অবস্থান করছে। বর্ণিত প্রেক্ষাপটে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে আনুমানিক ২২.০০ ঘটিকার সময় র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে দৌড়ে পালানোর চেষ্টাকালে আসামী ১। রেজাউর রহমান (৩৮) পিতা-মৃত- ফয়জুর রহমান চৌধুরী, বাসা নং-১২, পরীবাগ, ফ্লাট নং-১৩/এ, থানাÑ শাহবাগ, ডিএমপি, ঢাকাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের সময় আসামী পালানোর চেষ্টা করলে র‌্যাব ফোর্সের সাথে ধস্তাধস্তি হয় এবং গ্রেফতারকৃত ও তার পরিবার আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্তব্যে বাধা প্রদান করে। উক্ত সন্ত্রাসীর দেহ তল্লাশী করে ০১টি বিদেশী পিস্তল এবং ম্যাগজিনে ০৩ রাউন্ড গুলি লোড অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

৪।    প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে বিভিন্ন অপরাধের সাথে তার সংশ্লিষ্টতার বিষয় স্বীকার করেছে। জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানায় যে, সে একটি সংঘবদ্ধ অপরাধ চক্রের মূলহোতা হিসেবে দীর্ঘদিন থেকে নিজেকে সমাজের উচ্চ পদস্থ সামরিক, বেসামরিক পদের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মন্ত্রীদের নিকট আতœীয় হিসেবে কখনোবা নিজেই মন্ত্রীবেশে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অফিসে ফোন করে বিভিন্ন ধরনের অবৈধ সুযোগ সুবিধা গ্রহণ করেছে এবং এই অপচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। এর পাশাপাশি সমাজে উঠতি বয়সী বেকার যুবকদের চাকুরী, টেন্ডার জাতীয় কাজ পাইয়ে দেয়াসহ অবৈধভাবে জমি দখল করার কথা বলে অনেকের কাছ থেকে বিপুল পরিমান অর্থ আত্মসাৎ করেছে। পরবর্তীতে কথা মতো কাজ না করে দেয়ায় ভুক্তভোগীরা টাকা ফেরত চাইতে আসলে তাদেরকে অস্ত্রের মুখে ভয়ভীতিসহ জীবন নাশের হুমকি প্রদান করত। সে নিজে বিবাহিত হওয়া সত্ত্বেও বিবাহের পরিচয় গোপন রেখে কতিপয় যুবতী মেয়েদেরকে বিভিন্ন অফিসে কাজ পাইয়ে দেয়া সহ উচ্চবিলাসী জীবন যাপনের প্রলোভন দেখিয়ে তাদের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করত। এছাড়াও সে তার এলাকায় কোন নতুন ভবন তৈরী, দেওয়াল নির্মাণ করতে গেলে মালিকদের নিকট হতে চাঁদা দাবী করত। গ্রেফতারকৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে আরো অনেক চাঞ্চল্যকর ও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে, যা যাচাই বাছাই করে ভবিষ্যতেও এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

৫।  উপরোক্ত বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সাম্প্রতিক ভিডিও




র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

***জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন ।
***আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্প‍ুর্ন্ন গোপন রাখা হবে । ***বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান
***ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না ।
***যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া বিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহন করা হইতে বিরত ‍থাকা আবশ্যক ।