Home » News Room » র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর খিলক্ষেত থানাধীন নিকুঞ্জ এলাকা হতে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম এর ০৪ জন সদস্য গ্রেফতার।

র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর খিলক্ষেত থানাধীন নিকুঞ্জ এলাকা হতে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম এর ০৪ জন সদস্য গ্রেফতার।

Picture-1

র‌্যাবের গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৪ এর ০১টি আভিযানিক দল অদ্য ৩০ নভেম্বর ২০১৯ তারিখ রাত ২১.৪০ ঘটিকায় অভিযান পরিচলানা করে খিলক্ষেত থানাধীন নিকুঞ্জ এলাকা হতে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম এর নি¤œবর্ণিত ০৪ জন সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার করেঃ

(ক) মোঃ মাসুম মিয়া @ মাসুম (৩০), জেলা- কুমিল্লা।
(খ) মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক @ এমরান (১৯), জেলা-গাজীপুর।
(গ) মোঃ রাকিবুল হাসান @ সিয়াম (১৮), জেলা-মুন্সিগঞ্জ।
(ঘ) মোঃ আব্দুল্লাহ আল রোমান @ রোমান খান (২২), জেলা-ঝিনাইদহ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম এর সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকারোক্তি প্রদান করে। গ্রেফতারকৃতদের কাছ হতে জঙ্গি সংগঠনের বিভিন্ন ধরনের উগ্রবাদী সম্পর্কিত বই, লিফলেটসহ উগ্রবাদী ডিজিটাল কনটেন্ট ও মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত জঙ্গি সদস্য মোঃ মাসুম মিয়া @ মাসুমকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায় যে, তার বাড়ি কুমিল্লা জেলায়। সে বর্তমানে ইলেকট্রিক মিস্ত্রির কাজ করে। ফেইসবুকের মাধ্যমে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম এর শীর্ষ স্থানীয় নেতার অনুসারী ইতোমধ্যে গ্রেফতারকৃত আমির হোসেন এর মাধ্যমে পরিচত হয় এবং তার মাধ্যমে জঙ্গি সংগঠনের সাথে জড়িত হয়। পরবর্তীতে অনলাইনে বিভিন্ন জঙ্গিবাদী আইডি থেকে জঙ্গি সংক্রান্ত পোস্ট ডাউনলোড করে এবং বিভিন্ন জঙ্গির সাথে পরিচয় হয়। সে জঙ্গি সংগঠনে বিভিন্ন ভাবে আর্থিক সহায়তা প্রদান করে আসছে। সাতক্ষীরা অঞ্চলের শীর্ষ স্থানীয় জঙ্গি ইতোমধ্যে গ্রেফতারকৃত আমীর হামজা এর কাছ থেকে জঙ্গি সংগঠনের সক্রিয়তা সম্পর্কে জানতে পারে। পরবর্তীতে সে অনলাইনে শীর্ষ স্থানীয় জঙ্গিদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতো এবং তাদের সাথে নিয়মিত মিটিং এর আয়োজন করে। সে প্রায় ০৩ বৎসর যাবত এই সংগঠনের সাথে জড়িত রয়েছে।

গ্রেফতারকৃত জঙ্গি সদস্য মোঃ আবু বক্কার সিদ্দিক @ এমরানকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় সে বর্তমানে ফাজিল ১ম বর্ষের ছাত্র। সে বাংলাদেশী বীর মুজাহিদ নামক এক ব্যক্তির সাথে এ্যাপস্ এর মাধ্যমে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম সম্পর্কে প্রথম জানতে পারে এবং তাদের কাজে উদ্বুদ্ধ হয়ে এ দলে যোগদান করে। সে প্রায় ০২ বৎসর যাবত এই সংগঠনের সাথে জড়িত রয়েছে। বিভিন্ন এ্যাপস্ যেমন টেলিগ্রাম, টর, ম্যাসেঞ্জার ও ইমো ব্যাবহার করে বিভিন্ন ছদ্ম নামে আইডি ব্যাবহার করে অনলাইনে বিভিন্ন রকম জঙ্গি বাদী কার্যক্রম পরিচালন করে আসছিলো। পরবর্তীতে সে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম এর শীর্ষস্থানীয় নেতাদের সাথে অনলাইন গ্রæপের মাধ্যমে পরিচিত হয় এবং নিয়মিত যোগাযোগ করা সহ সংগঠনের বিভিন্ন রকম কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য সক্রিয় ভূমিকা পালন করে আসছিলো।

গ্রেফতারকৃত জঙ্গি সদস্য মোঃ রাকিবুল হাসান @ সিয়াম @ মোঃ সিয়াম সরকারকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় সে মুন্সিগঞ্জ জেলার বাসিন্দা। সে স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় ৮ম শ্রেনী (মিজান) পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। শীর্ষস্থানীয় এক জঙ্গির সাথে ফেইসবুক, ম্যাসেঞ্জার এর মাধ্যমে তার প্রথম পরিচয় হয়। পরবর্তিতে জঙ্গি সংগঠনের বিভিন্ন আইডির সাথে পরিচয় হয় এবং জঙ্গিবাদি বিভিন্ন রকম কার্যকলাপে আগ্রহী হয়ে উঠে। পরবর্তীতে সাতক্ষীরা অঞ্চলের শীর্ষস্থানীয় এক জঙ্গির মাধ্যমে জঙ্গিবাদে দীক্ষিত হয়। সে আনসারুল্লাহ বাংলাটিমের একজন সক্রিয় সদস্য। সে বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠন এর বিভিন্ন ভিডিও, বইপত্র, মোবাইল এ্যাপস এর মাধ্যমে সংগ্রহ করতো এবং তাদের সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলাটিম পরিচালনা ও ব্যয় নির্বাহের জন্য প্রতি মাসে চাঁদা দিয়ে আসছে। সে প্রায় ০২ বৎসর যাবত এই সংগঠনের সাথে জড়িত রয়েছে।

গ্রেফতারকৃত জঙ্গি সদস্য মোঃ আব্দুল্লাহ আল রোমান @ রোমান খান’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায় যে, অনলাইনে সে ছদ্ম নাম ব্যবহার করে জঙ্গি সংগঠনের কার্যক্রম পরিচালনা করে। সে গাজীপুরের একটি কলেজের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্র। ছাত্র জীবনে সে হরকাতুল জিহাদের সাথে যুক্ত ছিল। হরকাতুল জিহাদ নিষিদ্ধ ঘোষিত হলে তিনি তার সক্রিয়তা কমিয়ে দেয়, কিন্তু সবসময় সে সশস্ত্র উগ্রবাদ এ অংশগ্রহনে আগ্রহী ছিল। আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের শীর্ষস্থানীয় এক জঙ্গি তাকে দাওয়াত দেয় এবং বিভিন্ন বই, লিফলেট ও ভিডিও সরবরাহ করে। পরবর্তীতে তার মাধ্যমে সাতক্ষীরা অঞ্চলের শীর্ষ স্থানীয় অন্যতম জঙ্গি সদস্য মোঃ ইকরামুল ইসলাম যার সাংগঠনিক নাম মুত্তাকিন ওরফে আমীর হামজা ওরফে সালাউদ্দিন আইয়ুবী এর সাথে পরিচয় হয় এবং তার সাথে জঙ্গি সংগঠনের কার্যক্রম পরিচালনা করে। এমনকি সংগঠনের প্রয়োজনে যোগাযোগ করার জন্য বিভিন্ন অনলাইন এ্যাপস্ হাতে কলমে শিক্ষা দেয়। সে প্রায় ০৩ বৎসর যাবত এই সংগঠনের সাথে জড়িত রয়েছে। সে শীর্ষ জঙ্গিদের মধ্যে একজন, তার নিকট থেকে বিভিন্ন উগ্রবাদী ডিজিটাল কন্টেন্ট পাওয়া গিয়েছে।

সাম্প্রতিক ভিডিও




র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

***জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন ।
***আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্প‍ুর্ন্ন গোপন রাখা হবে । ***বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান
***ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না ।
***যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া কিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহন করা হইতে বিরত ‍থাকা আবশ্যক ।