Home » News Room » র‌্যাবের অভিযানে বরগুনা সদর থানাধীন টাউন হল এলাকা হতে ০২ জন জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার।

র‌্যাবের অভিযানে বরগুনা সদর থানাধীন টাউন হল এলাকা হতে ০২ জন জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার।

thumbnail000

১। এলিট ফোর্স র‌্যাব তার সৃষ্টির সূচনালগ্ন থেকেই জঙ্গী ও সন্ত্রাসবাদ এর বিরুদ্ধে আপোষহীন অবস্থানে থেকে নিরলস ভাবে কাজ করে আসছে। র‌্যাবের তথা আইন-শৃংখলা বাহিনীর নিয়মিত অভিযানের ফলে জঙ্গী/উগ্রপন্থী দমনে বাংলাদেশের সাফল্য বিশ্বব্যাপী সমাদৃত। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের জঙ্গী/উগ্রপন্থী গোষ্ঠী সমূহ আগের মত শক্তিশালী না থাকলেও গোপনে তারা যেন পুনরায় সংগঠিত না হতে পারে তার জন্য র‌্যাব সদা জাগ্রত। এর প্রেক্ষিতে গোয়েন্দা নজরদারীর মাধ্যমে র‌্যাব বরিশাল অঞ্চলে কয়েকজন জঙ্গী/উগ্রপন্থীর অবস্থান সম্পর্কে তথ্য পায় এবং এদের গ্রেফতারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করতে তৎপরতা শুরু করে।

২। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাবের গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৮ এর আভিযানিক দল অভিযান পরিচালনা করে ২৮ মার্চ ২০১৯ তারিখে ২৩.০০ ঘটিকার সময় বরগুনা সদর থানাধীন টাউন হল এলাকা হতে ০২ জন উগ্রপন্থী সদস্য ১। মোঃ শহিদুল ইসলাম @শহিদ@বেলায়েত (৩৫), পিতা-মোঃ আইয়ুব আলী মীর, মাতা-মোসাঃ মিনারা বেগম, সাং-উকিল পট্টি, থানা ও জেলা-বরগুনা, স্থায়ী ঠিকানাঃ সাং-ছোট যাদবপুরা, ইউনিয়ন-বুকাবুনিয়া, থানা-বামনা, জেলা-বরগুনা এবং ২। মোঃ হাসান মাহমুদ@হাসান@মাহমুদ (২৩), পিতা-মোঃ সেলিম হাং, মাতা-মোসাঃ লাভলী আক্তার, সাং-বাঁশবুনিয়া বাঁশবাড়িয়া, থানা-বরগুনা সদর, জেলা-বরগুনা‘কে গ্রেফতার করে।

৩। গ্রেফতারকৃত মোঃ শহিদুল ইসলাম@শহিদ@বেলায়েত প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে যে তিনি জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য। তিনি একটি আলিয়া মাদ্রাসা হতে দাখিল পাশ করেন ও পেশায় একজন মুদি দোকানদার। তিনি ২০১২ সালে আউয়াল সিরাজ @ সিরাজ, আতিকুর রহমান @শাওন @বাবু, হাসান@মেহেদী সহ বিভিন্ন জেএমবি’র সদস্যের মাধ্যমে গোপনে জেএমবি’র কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত হন। তিনি প্রশিক্ষনের জন্য ঢাকা ও চট্রগ্রামে একাধিকবার গমন করেন। তিনি ২০১৩ সালে বরগুনাতে জেএমবি’র সদস্যদের সাথে গোপনে বৈঠকের সময় পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতার হন। তিনি দাওয়াতি শাখার সক্রিয় সদস্য। তিনি জেএমবি’র উর্ধ্বতন নেতার নির্দেশে যে কোন সময় হিযরতের জন্য প্রস্তুত থাকেন।

৪। গ্রেফতারকৃত মোঃ হাসান মাহমুদ@হাসান@মাহমুদ প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে যে তিনি জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য। তিনি একটি টেকনিক্যাল কলেজ হতে এইচএসসি পাশ করেন এবং পেশায় একজন মুদি দোকানদার। তিনি ২০১২ সালে আল আমিন, মাইনুদ্দিন, মেহেদী হাসান @ মিরাজ, হাসান@মেহেদী সহ বিভিন্ন জেএমবি’র সদস্যের মাধ্যমে গোপনে জেএমবি’র কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত হন। তিনি সামরিক শাখার প্রশিক্ষন প্রাপ্ত এবং প্রশিক্ষনের জন্য একাধিকবার ঢাকা গমন করেন। তিনি ২০১৩ সালে বরগুনাতে জেএমবি’র সদস্যদের সাথে গোপনে বৈঠকের সময় পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতার হন। তিনি সামরিক শাখার সক্রিয় সদস্য। তিনি জেএমবি’র উর্ধ্বতন নেতার নির্দেশে যে কোন ধংসাত্মক কাজের জন্য প্রস্তুত থাকেন।

৫। উপরোক্ত বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সাম্প্রতিক ভিডিও




র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

***জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন ।
***আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্প‍ুর্ন্ন গোপন রাখা হবে । ***বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান
***ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না ।
***যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া কিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহন করা হইতে বিরত ‍থাকা আবশ্যক ।