Home » News Room » র‌্যাবের অভিযানে ফরিদপুর জেলার ভাংগা থানা হতে বিকাশ প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত মোবাইল সেট, সীমকার্ড এবং মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেটসহ বিকাশ প্রতারক চক্রের ০২ (দুই) সদস্য গ্রেফতার।

র‌্যাবের অভিযানে ফরিদপুর জেলার ভাংগা থানা হতে বিকাশ প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত মোবাইল সেট, সীমকার্ড এবং মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেটসহ বিকাশ প্রতারক চক্রের ০২ (দুই) সদস্য গ্রেফতার।

Press - 1 (RAB-8) Pic

১। র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উদ্ঘাটন, জঙ্গিবাদ দমন, অপরাধীদের গ্রেফতারসহ আইন শৃংখলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। র‌্যাব শুরুু থেকে যে কোন ধরণের অপরাধী, অপহরণ, মাদক উদ্ধার, অপহ¦ত ভিকটিম উদ্ধারসহ দেশের শীর্ষ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও বিভিন্ন প্রতারক চক্রকে গ্রেফতার করতে সার্বক্ষণিকভাবে অভিযান পরিচালনা করে থাকে।

২। এরই ধারাবাহিকতায়, র‌্যাব-৮, ফরিদপুর ক্যাম্পের একটি বিশেষ আভিযানিক দল ১৭ মে ২০১৯ইং তারিখ গভীর রাতে ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা থানার রায়নগর গ্রাম এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে বিকাশের মাধ্যমে প্রতারনা চক্রের ০২ জন সক্রিয় সদস্য, ১। মোঃ মোস্তাক হাওলাদার(২৮), পিতা- মোঃ ফজলু হাওলাদার, সাং- রায়নগর, থানা-ভাংগা, জেলা-ফরিদপুর, ২। ঠান্ডু শেখ(২৬), পিতা- মোঃ মজিদ শেখ, সাং-মিয়াপাড়া, থানা-ভাংগা, জেলা-ফরিদপুরদ্বয়কে আটক করে। এ সময় আটককৃত প্রতারক চক্রের নিকট হতে বিকাশ প্রতারনার কাজে ব্যবহৃত ০৭টি মোবাইল সেট, ২০১টি সীমকার্ড ও ২৮ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত ০২ জন, বিকাশ প্রতারনার মাধ্যমে জনসাধারনের নিকট হতে বিপুল পরিমান অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে বলে স্বীকার করে। ঘটনার বিবরনে জানা যায়, বিকাশ প্রতারক চক্রের সদস্যরা বিভিন্ন দুর্নীতিপরায়ণ মোবাইল সীম বিক্রেতার সাথে পরস্পর যোগসাজস করে ভূয়া নামে সীম কার্ড রেজিস্ট্রেশন ও উক্ত সীমকার্ড ব্যবহার করে অসাধু ডিএসআর(বিকাশ এ্যাকাউন্ট খোলার জন্য বিকাশ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নিয়োগকৃত এ্যজেন্ট) গণের মাধ্যমে ভূয়া বিকাশ এ্যাকাউন্ট খোলে। প্রতারক চক্রের সদস্যরা দুর্নীতিপরায়ণ ডিএসআর গণের নিকট থেকে অর্থের বিনিময়ে বিকাশ এ্যজেন্টদের লেনদেনের তথ্য সংগ্রহ করে ঐসব ভূয়া রেজিস্ট্রেশনকৃত মোবাইল সীমকার্ড ব্যবহার করে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের সহজ সরল সাধারণ জনগনের নিকট নিজেদেরকে বিকাশ হেড অফিসের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে ফোন করে কৌশলে তাদের বিকাশ পিন কোড জেনে নেই এবং স্মার্ট ফোনে বিকাশ এ্যাপস্ ব্যবহার করে উক্ত সাধারণ লোকজনের বিকাশ এ্যাকাউন্ট হতে প্রতারনার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়। আটককৃত ব্যক্তিদ্বয় জিজ্ঞাসাবাদে আরো স্বীকার করে যে, তারা বিকাশ প্রতারণার সাথে সাথে সংঘবদ্ধভাবে ফরিদপুর জেলার ভাংগা থানার বিভিন্ন এলাকায় মাদক দ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট ক্রয়-বিক্রয় করে থাকে। আটককৃত ব্যক্তিদ্বয় পূর্বেও বিকাশ প্রতারনার অপরাধে জড়িত থাকায় তাদের বিরুদ্ধে এ সংক্রান্তে মামলা রয়েছে বলে প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়।

৩। উপরোক্ত বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ।

সাম্প্রতিক ভিডিও




র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

***জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন ।
***আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্প‍ুর্ন্ন গোপন রাখা হবে । ***বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান
***ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না ।
***যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া কিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহন করা হইতে বিরত ‍থাকা আবশ্যক ।