Home » News Room » র‌্যাবের অভিযানে ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানাধীন বিভিন্ন ওষুধের দোকান হতে বিপুল পরিমান ভেজাল ওষুধসহ ০৪ জন গ্রেফতার।

র‌্যাবের অভিযানে ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানাধীন বিভিন্ন ওষুধের দোকান হতে বিপুল পরিমান ভেজাল ওষুধসহ ০৪ জন গ্রেফতার।

১।    র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সবসময়ই অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী, খুনি, মাদক ও মাদক ব্যবসায়ী, বিভিন্ন সদস্যদের গ্রেফতার পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের ক্ষেত্রে অত্যন্ত অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাবের সৃষ্টিকাল থেকে চাঁদাবাজ, সন্ত্রাস, খুনি, বিপুল পরিমাণ অবৈধ অস্ত্র গোলাবারুদ উদ্ধার, ছিনতাইকারী, চোরাকারবারী, অপহরণ ও প্রতারকদের গ্রেফতার করে সাধারণ জনগণের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে সংগঠিত চাঞ্চল্যকর অপরাধে জড়িত অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে র‌্যাব জনগনের সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

২।    এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৮,    ফরিদপুর ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল অদ্য ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তারিখ সকাল ১০০০ ঘটিকা হতে দুপুর ১৩০০ ঘটিকা পর্যন্ত ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানাধীন নিলটুলীর আফরিন ফার্মেসী এবং মুন্সির বাজারস্থ বি এইচ মেডিকেল হল, আরাফাত মেডিকেল হল ও মেসার্স মা ফার্মেসীতে অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমান নিষিদ্ধ ভেজাল ওষুধ এবং মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ জব্দ করে। এ সময়ে আফরিন ফার্মেসীর মালিক (১) মোঃ ফিরোজ বিশ^াস@মিরাজ(৩০), পিতা-মোঃ হারুনুর রশিদ, সাং-বারসাদিয়া, মেসার্স বি এইচ মেডিকেল হলের মালিক (২) মোঃ জাকির হোসেন(৩৫), পিতা-মোঃ রাশেদ বিশ^াস, সাং-কাফুরা, আরাফাত মেডিকেল হলের মালিক (৩) মোঃ একলাছ তালুকদার(৪০), পিতা-আব্দুস সালাম তালুকদার, সাং-কইজুরী, মেসার্স মা ফার্মেসীর মালিক (৪) মোঃ মুহিউদ্দীন মিয়া(৩৬), পিতা-মোঃ আব্দুল হালিম, সর্বথানা-কোতয়ালী, জেলা-ফরিদপুরদেরকে গ্রেফতার করে। পরবর্তীতে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, ফরিদপুর এর উপস্থিতিতে ওষুধ আইন ১৯৪০ এর ১৮(ক) এর ২৭ ধারা মোতাবেক আফরিন ফার্মেসীর মালিক (১) মোঃ ফিরোজ বিশ^াস@মিরাজ কে ৫০,০০০/-, মেসার্স বি এইচ মেডিকেল হলের মালিক (২) মোঃ জাকির হোসেনকে ১০,০০০/-, আারাফাত মেডিকেল হলের মালিক (৩) মোঃ একলাছ তালুকদারকে ৫,০০০/- এবং মেসার্স মা ফার্মেসীর মালিক (৪) মোঃ মুহিউদ্দীন মিয়াকে ১০,০০০/- টাকা করে সর্বমোট ৭৫ হাজার টাকা অর্থ দন্ডে দন্ডিত করেন।

র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

***জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন ।
***আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্প‍ুর্ন্ন গোপন রাখা হবে । ***বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান
***ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না ।
***যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া বিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহন করা হইতে বিরত ‍থাকা আবশ্যক ।

সাম্প্রতিক ভিডিও