Home » News Room » র‌্যাবের অভিযানে চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী থানাধীন মনকির চর এলাকার চাঞ্চল্যকর শিশু ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী ধর্ষক মাদ্রাসা শিক্ষক মোঃ ফয়জুল্লাহ (২০) কে গ্রেফতার

র‌্যাবের অভিযানে চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী থানাধীন মনকির চর এলাকার চাঞ্চল্যকর শিশু ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী ধর্ষক মাদ্রাসা শিক্ষক মোঃ ফয়জুল্লাহ (২০) কে গ্রেফতার

Press - 2 (RAB-7) Pic

১। র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উদ্ঘাটন, অপরাধীদের গ্রেফতারসহ আইন শৃংখলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। র‌্যাবের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ধর্ষক, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, ডাকাত, খুনি, বিপুল পরিমান অবৈধ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার, মাদক উদ্ধার, ছিনতাইকারী, অপহরণকারী ও প্রতারকদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করায় সাধারণ জনগনের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

২। গত ২৪ এপ্রিল ২০১৯ ইং তারিখ বাঁশখালী উপজেলার চাম্বল ইউনিয়নের ৭ম শ্রেনীর মাদ্রাসার ছাত্রীকে প্রাইভেট পড়ানোর নাম করে মাদ্রাসার শিক্ষক আসামী মোঃ ফয়জুল্লাহ মাদ্রাসা কক্ষের দরজা বন্ধ করে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। ঘটনার দিন নির্দিষ্ট সময়ে ভিকটিম বাসায় না ফেরায় তার মা ও চাচী মাদ্রাসায় যায় এবং মাদ্রাসায় যাওয়ার পর ভিকটিম তার মা ও চাচা-চাচীকে দেখে কান্না কাটি করতে থাকে। কান্না কাটির কারন জিজ্ঞাসা করলে ভিকটিম জানায় যে, প্রতিদিনের ন্যায় প্রাইভেট পড়া শেষে তার সাথের বান্ধবীদের বের করে দিয়ে আসামী মোঃ ফয়জুল্লাহ তাকে মাদ্রাসা কক্ষের দরজা বন্ধ করে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। তাৎক্ষনিক ভিকটিমের মা ও চাচা-চাচী ঘটনাটি মাদ্রাসার পরিচালক (বড় হুজুর) জনাব মাহমুদুল্লার নিকট নালিশ করে। তিনি ঘটনাটি শুনে বিষয়টি সমাধান করবে বলে আশ্বস্ত করেন। উক্ত আশ্বাসে গত ২৫ এপ্রিল ২০১৯ ইং ও ২৭ এপ্রিল ২০১৯ ইং তারিখ স্থানীয় মেম্বার বৈঠক করে যে সিদ্ধান্ত নেয় বিবাদী মোঃ ফয়জুল্লাহ সে সিদ্ধান্ত না মেনে পালিয়ে যায়। বাদী পক্ষ পরবর্তীতে বিচারের আশায় আদালতে যায়। আদালত হতে মেডিকেল রিপোর্টের জন্য ভিকটিমকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে প্রাথমিক পরিক্ষান্তে ভিকটিম ধর্ষিত হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। উক্ত ঘটনায় গত ০১ মে ২০১৯ ইং তারিখে ভিকটিমের মা ধর্ষক মোঃ ফয়জুল্লাহ এর বিরুদ্ধে বাঁশখালী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইন ২০০০ (সংশোধনী ২০০৩) এর ৯(১) ধারা মোতাবেক একটি ধর্ষণ মামলা রুজু দায়ের করেন (যার মামলা নং -০২, তারিখঃ ০১/০৫/২০১৯ ইং)। তাৎক্ষনিক র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম এই চাঞ্চল্যকর ঘটনার ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং ব্যাপক গোয়েন্দা নজরদারী অব্যাহত রাখে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, উক্ত মামলার আসামী ধর্ষক মোঃ ফয়জুল্লাহ (২০) চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী থানাধীন ৯নং শিলকুপ ইউনিয়ন, ৩নং ওয়ার্ড, মনকির চর মহল্লা পাড়া এলাকায় তার নিজ বাড়িতে অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে অদ্য ১৪ মে ২০১৯ ইং তারিখ ভোর ০৪১০ ঘটিকার সময় র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ধর্ষক মোঃ ফয়জুল্লাহ (২০), পিতা- মৃত মাওলানা আবুল কাশেম, গ্রাম- মনকির চর মহল্লা পাড়া, ৩নং ওয়ার্ড, ৯নং শিলকুপ ইউনিয়ন, থানা- বাঁশখালী, জেলা- চট্টগ্রাম’কে আটক করে।

৩। উপরোক্ত বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ।

সাম্প্রতিক ভিডিও




র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

***জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন ।
***আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্প‍ুর্ন্ন গোপন রাখা হবে । ***বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান
***ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না ।
***যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া বিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহন করা হইতে বিরত ‍থাকা আবশ্যক ।