Home » News Room » র‌্যাবের অভিযানে অভিনব কৌশলে অনলাইনে মোবাইল বিক্রয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ছিনতাইকারী চক্রের ০৬ সক্রিয় সদস্য গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানা এলাকা হতে গ্রেফতার ।

র‌্যাবের অভিযানে অভিনব কৌশলে অনলাইনে মোবাইল বিক্রয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ছিনতাইকারী চক্রের ০৬ সক্রিয় সদস্য গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানা এলাকা হতে গ্রেফতার ।

RAB-1

১। র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আপোষহীন ভাবে বিভিন্ন অপরাধ দমনে ও সন্ত্রাসমুক্ত দেশ গড়ার ক্ষেত্রে বিশেষ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষার্থে র‌্যাব এ পর্যন্ত জঙ্গি, অপহরণকারী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী, ছিনতাইকারী, চাঁদাবাজ, প্রতারকচক্র, মাদক ব্যবসায়ী, এজাহারনামীয় আসামী, মলম/অজ্ঞান পার্টি, চোরাকারবারীদের গ্রেফতার করে সাধারণ জনগণের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

২। গাজীপুর মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় কতিপয় ছিনতাইকারী চক্র দীর্ঘদিন ধরে সক্রিয় রয়েছে বলে জানা যায়। তারা টঙ্গী, আব্দুল্লাহপুর, চৌরাস্তা, বেড়িবাধ, আশুলিয়া ও আশপাশের এলাকায় অভিনব কৌশলে মোবাইল বিক্রয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ মানুষের নিকট হতে মোবাইল, টাকা-পয়সা ও মূল্যবান সামগ্রী ছিনতাই করে আসছে। বিষয়টি র‌্যাবের দৃষ্টিগোচর হলে ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে র‌্যাব-১ গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে এবং একটি ছিনতাইকারী সংঘবদ্ধ চক্রকে চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়।

৩। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৭ মে ২০১৯ তারিখ আনুমানিক ১৮০৫ ঘটিকার সময় র‌্যাব-১ এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, বর্ণিত ছিনতাইকারী চক্রের কতিপয় সদস্য গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন পূর্ব আরিচপুর সরকারবাড়ি রোডের শাকিল স্টোর নামক দোকানের সামনে পাঁকা রাস্তার উপর একটি সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্রের কতিপয় সক্রিয় সদস্য ছিনতাইকৃত চোরাই মালসহ অবস্থান করিতেছে। প্রাপ্ত সংবাদের ভিত্তিতে আভিযানিক দলটি বর্ণিত স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ছিনতাইকারী চক্রের সক্রিয় সদস্য ১) মোঃ শাহিন (২০), পিতা-মোঃ জয়নাল আবেদীন, মাতা-শাহানাজ বেগম, সাং-নরিয়া, থানা-জাজিরা, জেলা-শরীয়তপুর, বর্তমান-পূর্ব আরিচপুর, ওয়ার্ড নং-৪৫, রিপন কাউন্সিলর এর বাড়ীর ভাড়াটিয়া, সরকারী বাড়ী রোড, থানা-টঙ্গী পূর্ব, জিএমপি, গাজীপুর, ২) মোঃ শাকিল হাসান (১৯), পিতা-মোঃ ফরহাদ হোসেন, মাতা-মোসাঃ সাজিদা বেগম, সাং-পাথালিয়া, থানা-জামালপুর সদর, জেলা-জামালপুর, বর্তমান-পূর্ব আরিচপুর, ওয়ার্ড নং-৪৫, নোয়াখাইল্যার বাড়ীর ভাড়াটিয়া, সরকারী বাড়ী রোড, থানা-টঙ্গী পূর্ব, জিএমপি, গাজীপুর, ৩) মোঃ ফার¦ক (২০), পিতা-মোঃ লিটন, মাতা-নাজমা বেগম, সাং-চন্ডিপাশা, থানা-নান্দাইল, জেলা-ময়মনসিংহ, বর্তমান-পূর্ব আরিচপুর, ওয়ার্ড নং-৪৫, ছানাউল‘াহ বাড়ী, সরকারী বাড়ী রোড, থানা-টঙ্গী পূর্ব, জিএমপি, গাজীপুর, ৪) মোঃ সালাউদ্দিন আকবর (২০), পিতা-আমির হোসেন, মাতা-সালেহা বেগম, সাং-পূর্ব হাসমদি, ১নং ইউনিয়ন, থানা-লক্ষীপুর সদর, জেলা-লক্ষীপুর, ৫) রহমত উল‘াহ (১৯), পিতা-মোঃ ইসমাইল হোসেন, মাতা-মোসাঃ হাসনা খাতুন, সাং-করনীপাড়া, পোঃ-মারাইয়া, ইউনিয়ন-মারাইয়া, থানা-বোদা, জেলা-পঞ্চগর, বর্তমান-পূর্ব আরিচপুর, ওয়ার্ড নং-৪৫, লায়লীর বাড়ীর ভাড়াটিয়া, সরকারী বাড়ী রোড, থানা-টঙ্গী পূর্ব, জিএমপি, গাজীপুর, ৬) মোঃ রাসেল (১৯), পিতা-মোঃ দেলোয়ার হোসেন, মাতা-নুরজাহান আক্তার বেবী, সাং-বাশতলা স্বর্ণকার গ্রাম (আততাবি বাজার), থানা-ফেনী সদর, জেলা-ফেনী, বর্তমান সাং-টঙ্গীবাজার আফতাব প‘াজা (তুষার সরকারের মার্কেটের ৪র্থ তলার ভাড়াটিয়া), ওয়ার্ড নং-৫৬, থানা-টঙ্গী পূর্ব, জিএমপি, গাজীপুর ’দেরকে গ্রেফতার করে। এসময় ধৃত গ্রফেতারকৃতদরে নিকট হতে ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত ০৩ টি সুইচ গিয়ার চাকু, ০৬ টি মোবাইল ফোন ও ৮৫০/- টাকা উদ্ধার করা হয়।

৪। গ্রেফতারকৃত আসামীদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা একটি সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্রের সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকার করে। তারা পরস্পর যোগসাজশে বিভিন্ন অনলাইন পেইজে স্বল্পমূল্যে মোবাইল ফোন বিক্রয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ছিনতাই করে আসছে। তারা ছিনতাইয়ের অভিনব কৌশল হিসেবে প্রাথমিক পর্যায়ে পণ্য কেনা বেচার বিভিন্ন অনলাইন পেইজে বাজার মূল্যের চেয়ে কম দামে মোবাইল ফোন বিক্রয়ের বিজ্ঞাপন দেয়। বিজ্ঞাপন দেখে সাধারণ মানুষ মোবাইলফোন ক্রয়ের উদ্দেশ্যে এই চক্রের সদস্যদের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে। পরবর্তীতে ভিকটিমদের ছিনতাই চক্রের সদস্যরা পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তাদের নির্ধারিত সুবিধাজনক স্থানে আসতে বলে। ভিকটিম সেই স্থানে উপস্থিত হইলে পূর্ব থেকে ফাঁদ পেতে থাকা এই চক্রের সদস্যরা তাদের নিকট থাকা ধারালো চাকুর (সুইচ গিয়ার চাকু) ভয় দেখিয়ে ভিকটিমদের নিকট থাকা মোবাইল, টাকা-পয়সাসহ মূল্যবান সামগ্রী ছিনিয়ে নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

৫। গ্রেফতারকৃত ছিনতাইকারী চক্রটির মূল হোতা শাহিন ও শাকিল। শাহিন ছিনতাই কাজের কৌশল হিসেবে প্রাথমিকভাবে অনলাইনে বিক্রয়.কম নামক পেইজে বাজার দামের চেয়ে অনেক কম দামে মোবাইল ফোন বিক্রয়ের জন্য বিজ্ঞাপন দেয়। বিজ্ঞাপন দেখে ভিকটিমরা এই চক্রের সদস্যদের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে। পরবর্তীতে ভিকটিমদের এই চক্রের সক্রিয় সদস্য শাকিল পূর্ব হতে নির্ধারিত সুবিধাজনক জায়গায় আসতে বলে। ভিকটিম নির্ধারিত স্থানে পৌঁছালে শাকিল এই চক্রের অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে ভিকমিটকে মারধর করে এবং তাদের নিকট থাকা ধারালো চাকুর (সুইচ গিয়ার চাকু) ভয় দেখিয়ে ভিকটিমের নিকটে থাকা নগদ অর্থ ও মূল্যবান সামগ্রী ছিনিয়ে নেই।

৬। উপরোক্ত বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ।

সাম্প্রতিক ভিডিও




র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

***জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন ।
***আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্প‍ুর্ন্ন গোপন রাখা হবে । ***বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান
***ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না ।
***যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া কিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহন করা হইতে বিরত ‍থাকা আবশ্যক ।