Home » News Room » “আসছে ২১ ফেব্রুয়ারি মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস” উপলক্ষ্যে দেশব্যাপী র‌্যাবের বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা

“আসছে ২১ ফেব্রুয়ারি মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস” উপলক্ষ্যে দেশব্যাপী র‌্যাবের বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা

১।    বিগত বছরের ন্যায় এ বছর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০১৭ উপলক্ষে আগামী ২০/২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখ মধ্যরাত্রি হতে ভাষা শহীদদের অমর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য সারাদেশে বিভিন্ন শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণসহ বিভিন্ন ধরণের অনুষ্ঠান উদ্যাপিত হবে। এ উপলক্ষে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, আজিমপুর কবরস্থান এলাকাসহ বিভিন্ন কবরস্থানে জিয়ারত ও পুস্পস্তবক অর্পণের জন্য জনসমাগম হবে। মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী দলীয় নেতা, অন্যান্য মন্ত্রী মহোদয় ও গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, বিদেশী অতিথিবৃন্দ এবং সাধারণ জনগণ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনের নিমিত্তে পুস্পস্তবক অর্পণ করবেন। আগত সর্বস্তরের জনসাধারণের পুস্পস্তবক অর্পণ ও শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনের জন্য উক্ত এলাকাসমূহে যেকোন ধরণের বিশৃংখলা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড রোধকল্পে অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি র‌্যাবও কঠোর নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

২।    ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের জন্য র‌্যাব-৩ এর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় উল্লেখিত এলাকাকে ০৫টি সেক্টরে এবং  অবজারভেশন/চেকপোস্টসহ বিভিন্ন দলে বিভক্ত করে র‌্যাব সদস্য পুলিশের সাথে প্রয়োজনীয় সমন¦য়পূর্বক তিন স্তরের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে। এছাড়া ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখ ০০.০১ ঘটিকা হতে শুরু করে সারাদিন সমগ্র দেশে বিশেষতঃ বিভাগীয় ও জেলা শহরসমূহে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও অন্যান্য সংগঠনসহ সর্বস্তরের জনসাধারণ শহীদ মিনারে সমবেত হবে। যে কোন ধরণের বিশৃঙ্খলা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড রোধকল্পে ছদ্মবেশ ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারী ও টহলের মাধ্যমে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। এছাড়া র‌্যাবের ব¤¦ ডিসপোজাল ইউনিট ও র‌্যাব ডগ স্কোয়াড শহীদ মিনার এলাকায় প্রয়োজনীয় স্যুইপিং কার্যক্রম পরিচালনা করবে। নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করণের লক্ষে ইতোমধ্যে ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখ হতে সাদা পোশাকে এবং ইউনিফর্ম টহলের মাধ্যমে র‌্যাব সদস্যগণ শহীদ মিনার এলাকা নজরদারির মধ্যে রেখেছে।

৩।    আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্যাপন ২০১৭ উপলক্ষে বিভিন্ন শহীদ মিনারে জনসাধারণের চলাচল নিয়ন্ত্রিত এলাকা/রুট ও বহির্বেষ্টনী এলাকায় সন্দেহজনক সকল হোটেল, রেস্ট হাউজ/গেস্ট হাউজ, বস্তি ও অন্যান্য সন্দেহভাজন স্থানে রেইড/তল্ল¬াশীর মাধ্যমে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন এলাকা থেকে শহীদ মিনার মুখী রাস্তার মোড় সমূহে চেকপোস্ট স্থাপনের মাধ্যমে সন্দেহভাজন ব্যক্তি, ব্যাগ ও পুস্পস্তবক ইত্যাদি তল্ল¬াশীর মাধ্যমে যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে। শহীদ মিনারে আগত মহিলাদেরকে প্রয়োজনে মহিলা র‌্যাব সদস্য দ্বারা তল্লাশীর মাধ্যমে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।

৪।    শহীদ মিনারের নিরাপত্তার বিষয়টি সর্Ÿোচ্চ গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে যে কোন উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য র‌্যাবের ব¤¦ স্কোয়াড এবং ষ্ট্রাইকিং ফোর্স সার্বক্ষণিকভাবে প্রস্তুত থাকবে। ইতোমধ্যে পর্যাপ্ত সিসিটিভি স্থাপনের মাধ্যমে স্পর্শকাতর স্থানগুলোকে র‌্যাবের নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে আনা হয়েছে। সার্বিক নিরাপত্তা কার্যক্রম সিসিটিভি মনিটরিং সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে সার্বক্ষণিকভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে। দেশব্যাপী সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত কল্পে যথেষ্ট সংখ্যক র‌্যাব সদস্য মোতায়েন থাকবে।

র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

***জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন ।
***আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্প‍ুর্ন্ন গোপন রাখা হবে । ***বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান
***ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না ।
***যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া বিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহন করা হইতে বিরত ‍থাকা আবশ্যক ।

সাম্প্রতিক ভিডিও