DSC05059
d1
cropped-DSC_0071-2.jpg
sl-3
sl-4
3.4
DSC_0073
3.3
slide-1
dsc_2740
dsc_0066-2
DSC_7798
Picture2
dsc_2730
ব্রেকিং নিউজ:
র‌্যাবের অভিযানে সাভার এলাকা হতে জেএমবির “সারোয়ার-তামীম” গ্রুপের তামীম চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ সহযোগী, আশ্রয় ও পরামর্শদাতা ধর্মান্তরিত মুসলিম তামীম দ্বারী সহ সর্বমোট ০৩ জন সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার ॥ আগ্নেয়াস্ত্র, বিস্ফোরক এবং IED তৈরীর সরঞ্জামাদি উদ্ধার।     |     সুন্দরবনের কুখ্যাত জলদস্যু/ডাকাত “আলিফ বাহিনীর” প্রধান মোঃ আলিফ মোল্লা ওরফে দয়াল এবং “কবিরাজ বাহিনীর” প্রধান মোঃ ইউনুস আলী শেখ ওরফে কবিরাজ ওরফে লাদেন সহ ২৫ (পঁচিশ) জন সক্রিয় সদস্য বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ র‌্যাবের নিকট আত্মসমর্পণ।     |     র‌্যাবের অভিযানে দিনাজপুরের রানীগঞ্জ থেকে জেএমবি সদস্য মোঃ সেলিম ও মোঃ খাদেমুল ইসলাম গ্রেফতার।     |     র‌্যাবের অভিযানে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ থানাধীন কয়লাবাড়ী এলাকা হতে ৬০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার ॥ ০৩ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার।     |     র‌্যাবের অভিযানে গাজীপুর জেলার ভোগড়া বাইপাস এলাকায় পাথর ভর্তি ট্রাক থেকে ২৩২০ বোতল ফেন্সিডিল জব্দ এবং ট্রাক চালক ও হেলপার গ্রেফতার     |    

মহাপরিচালকের বক্তব্য

4_002-300x152জনাব বেনজীর আহমেদ, বিপিএম (বার)

 মহাপরিচালক, র‌্যাব ফোর্সেস

 


logo

 

বাংলাদেশ পৃথিবীর একটি উন্নয়নশীল দেশ। আমাদের উন্নতির পথে যে সকল বাধা বিপত্তি রয়েছে তার মধ্যে, অস্থিতিশীল আইন শৃংখলা পরিস্থিতি অন্যতম। এরকম একটি পরিস্থিতিতে যখন সমাজের প্রত্যেকটা মানুষ অনিশ্চিয়তার মাঝে ভুগছিল, তখন পুলিশ বাহিনীর কার্যক্রমকে আরো গতিশীল ও কার্যকর করার লক্ষ্যে সরকার একটি এলিট ফোর্স গঠনের পরিকল্পনা করে। ক্রমান্বয়ে সভা-সমন্বয়, আলোচনা ও গবেষনার পর সরকার, স্বারাষ্ট্র মন্ত্রনালয় বাংলাদেশ পুলিশের অধীনে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন সংক্ষেপে র‌্যাব ফোর্সেস নামে একটি এলিট ফোর্স গঠনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। গত ২৬ মার্চ ২০০৪ তারিখে জাতীয় স্বাধীনতা দিবস প্যারেডে অংশ গ্রহনের মাধ্যমে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) জনসাধারনের সামনে আত্মপ্রকাশ করে। জন্মের পরপরই এই ফোর্সের ব্যাটালিয়নসমূহ সাংগঠনিক কর্মকান্ডে ব্যস্ত থাকে এবং স্ব স্ব এলাকা সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ শুরু করে। এর মাঝে প্রথম অপারেশনাল দায়িত্ব পায় ১৪ এপ্রিল ২০০৪ তারিখে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান-রমনা বটমুলে নিরাপত্তা বিধান করার জন্য । এর পর আবার র‌্যাব মূলত তথ্য সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত ছিল। গত ২১ জুন ২০০৪ সাল থেকে র‌্যাব ফোর্সেস পূর্ণাঙ্গভাবে অপারেশনাল কার্যক্রম শুরু করে।

র‌্যাব কর্তৃক প্রদত্ত পরামর্শ

***জমি জমা বা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কোন সমস্যা র‌্যাব কর্তৃক গ্রহণ করা হয় না ।
***কোন অভিযোগ করার পূর্বে আপনার এলাকার জন্য দায়িত্বপূর্ন র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্প সম্পর্কে জানুন ও যথাযথ র‌্যাব ব্যাটালিয়ন/ক্যাম্পে অভিযোগ করুন ।
***আপনার এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে র‌্যাব কে তথ্য প্রদান করে র‌্যাবকে সহযোগীতা করুন । আপনার পরিচয় সম্প‍ুর্ন্ন গোপন রাখা হবে ।
***বেশী করে গাছ লাগান অক্সিজেনের অভাব তাড়ান
***ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আগুন নিয়ে খেলতে দিবেন না ।
***যাত্রা পথে অপরিচিত লোকের দেওয়া বিছু খাবেন না । ভ্রমণকালে সহযোগী বা অন্য কাহারো নিকট হইতে পান, বিড়ি, সিগারেট, চা বা অন্য কোন পানীয় খাওয়া/গ্রহন করা হইতে বিরত ‍থাকা আবশ্যক ।

সাম্প্রতিক ভিডিও